আজ পাবনায় আসছেন প্রধানমন্ত্রী  উৎসবের আমেজ :অর্ধশত উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন

রফিকুল ইসলাম সুইট : আজ ১৪ জুলাই শনিবার পাবনা আসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন প্রশাসনের। স্মরণকালে বৃহত্তম জনসভার প্রত্যয় জেলা আওয়ামী লীগের। রূপপুর পারমানবিক প্রকল্পের দ্বিতীয় ইউনিটের ফার্স্ট কংক্রিট পোরিং ডেট (এফসিডি) কাজের উদ্বোধন, পাবনাবাসীর দীর্ঘ প্রতীক্ষিত পাবনা-মাঝগ্রাম রেলপথের উদ্বোধনসহ অর্ধশত উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন এবং জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে বিশাল জনসভায় অংশ নিবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রূপপুর পারমানবিক প্রকল্প, মাঝগ্রাম-পাবনা- ঢালারচর রেলপথ, পাবনা বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ. মেরিন একাডেমি, বিলগাজনা প্রকল্প, ঈশ্বরদী ইপিজেড, পাকশী-কাজির হাট সড়ক সহ বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন হয়েছে এই সরকারের সময়ে যার ফলে পাবনার মানুষ শেখ হাসিনার উপর ব্যাপক খুশি। তাই প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে পাবনা জেলা সর্বত্র উৎসবের আমেজ সৃষ্ঠি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর আগমন অপেক্ষায় পাবনাবাসীর মনে এখন বইছে আনন্দের জোয়ার।
প্রধানমন্ত্রী কর্মসুচী সমূহ সফল করতে প্রশাসনিক কর্মকর্তা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সমূহ, বিভিন্ন পেশাজীবি সংগঠন, আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা ব্যাপক ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।
দলীয় নেতা কর্মী, সরকারী কর্মকর্তা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের যেন দম ফেলার ফুসরত নেই। নতুন রূপে সাজানো হচ্ছে সার্কিট হাউজ, সংস্কার হচ্ছে ভাঙাচোরা রাস্তাঘাট, বিলবোর্ড,ব্যানার, ফেষ্টুন, দেয়াল লেখন, আলোক সজ্জা, তোরণ নির্মানসহ ব্যাপক সাজ সজ্জার কাজ চলছে জেলা ব্যাপী ।
প্রধামন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে ব্যস্ত সময় পার করছে পাবনা জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তা দিনরাত কাজ করছে প্রধানমন্ত্রীর কর্মসুচী সুন্দর করার জন্য। কোন প্রকার ক্রুটি রাখতে নারাজ তারা। পাবনা জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে আমরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন। প্রধানমন্ত্রীর কর্মসুচী সুন্দর করার জন্য আমরা সকলের সমন্বয়ে কাজ করছি। পাবনায় অনেক উন্নয়ন কাজ হয়েছে পাবনাবাসী প্রধানমন্ত্রীকে মনেপ্রাণে ভালোবাসে। জেলা প্রশাসন সুত্রে জানাগেছে- পাবনায় ৩১টি কাজের উদ্বোধন এবং ১৮ প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করবেন।
সংশ্লিষ্টরা জানান, শনিবার প্রধানমন্ত্রী ঈশ্বরদী থেকে মাঝগ্রাম হয়ে পাবনা পর্যন্ত রেলওয়ে সেকশনে ট্রেন চলাচল; পাবনা মেডিকেল কলেজের ছাত্রাবাস ও ছাত্রীনিবাস; ঈশ্বরদী থানা ভবন; জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স; সুজানগর উপজেলার নাজিরগঞ্জ, আটঘরিয়া উপজেলার মাঝপাড়া, ঈশ্বরদী উপজেলার পাকশী, সলিমপুর, লক্ষীকুন্ডা, সাঁড়া, পাবনা সদর উপজেলার চরতারাপুর এবং চাটমোহর উপজেলার ছাইকোলা ইউনিয়ন ভূমি অফিস; ফরিদপুর উপজেলায় বড়াল নদীর ওপর ‘নারায়ণপুর সেতু’; ভাঙ্গুড়া উপজেলায় গোমানী নদীর ওপর ‘নৌবাড়িয়া সেতু’; ঈশ্বরদী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স; চাটমোহর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স; সিটি কলেজ, পাবনা এর একাডেমিক ভবন; দেবত্তোর ডিগ্রি কলেজ, আটঘরিয়া এর একাডেমিক ভবন; খিদিরপুর ডিগ্রি কলেজ, আটঘরিয়া এর একাডেমিক ভবন; চাটমোহর মহিলা কলেজ এর একাডেমিক ভবন; বোনকোলা স্কুল অ্যান্ড কলেজ, সুজানগর এর একাডেমিক ভবন; সুজানগর মহিলা কলেজ এর একাডেমিক ভবন; শহীদ নুরুল হোসেন ডিগ্রি কলেজ, সাঁথিয়া এর একাডেমিক ভবন; ঈশ্বরদী মহিলা কলেজ এর একাডেমিক ভবন; সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ এর প্রশাসনিক ভবন; ডেঙ্গারগ্রাম ডিগ্রি কলেজ, আটঘরিয়া এর একাডেমিক ভবন; আটঘরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স; চাটমোহর উপজেলায় গোমানী নদীর ওপর ‘নিমাইচড়া সেতু’; চাটমোহর উপজেলায় ‘কাটাখাল সেতু’; চাটমোহর উপজেলায় আত্রাই নদীর ওপর ‘আত্রাই সেতু’; সুজানগর উপজেলায় ‘ধোলাইখাল সেতু’; শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা, ভাঙ্গুড়া; শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা, চাটমোহর; শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা, ফরিদপুর; শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা, ঈশ্বরদী; শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা, আটঘরিয়া; শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা, সাঁথিয়া; শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা, সুজানগর উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর উদ্বোধন করবেন।
এছাড়া তিনি রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে সিগন্যালিংসহ রেললাইন নির্মাণ; জেলা সদরে ১০০০ আসনবিশিষ্ট অডিটোরিয়াম কাম মাল্টিপারপাস হল; সুজানগর উপজেলায় কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র; আটঘরিয়া উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন; চাটমোহর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রার অফিস ভবন; বেড়া উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রার অফিস ভবন; সুজানগর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রার অফিস ভবন; জেলা রেজিস্ট্রার অফিস ভবন; পুলিশ লাইন্স মহিলা পুলিশ ব্যারাক ভবন; সুজানগর উপজেলায় সাগরকান্দি ইউনিয়ন ও আটঘরিয়া উপজেলায় হাদল ইউনিয়ন ভূমি অফিস; পাবনা মেডিকেল কলেজে ৫০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল; জেলা শিল্পকলা একাডেমি; সাঁথিয়া টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ; আদর্শ মহিলা কলেজ, পাবনা এর একাডেমিক ভবন; সাঁথিয়া উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন; বেড়া পৌরসভায় উচ্চ জলাধার ও পানি শোধনাগার নির্মাণ; সাঁথিয়া পৌরসভায় উচ্চ জলাধার নির্মাণ; ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট পাবনা জেনারেল হাসপাতালের ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন।
এদিকে প্রধানমন্ত্রীর জনসভা সফল করতে নাওয়া খাওয়া ভুলে মাঠে নেমেছেন জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।পার্টি অফিসে গেলেই বোঝা যায় কত ব্যস্ত নেতাকর্মীরা।এরই মধ্যে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের উচ্চ পর্যায়ের নেতারা পাবনা সফর করে পাবনার নেতাকর্মীদের নির্দেশনা দিয়েছেন। দলীয় কার্যালয়সহ জেলার সর্বত্র প্রতিদিন চলছে বিশেষ বর্ধিত সভা ও আনন্দ মিছিল। প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ছাপা ব্যানার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে জেলা অধিকাংশ গুরুত্বপুর্ণ রাস্তা ঘাট। তৈরী হচ্ছে সুদৃশ্য তোরণ। পাবনা পুলিশ লাইনস মাঠে তৈরী হয়েছে বিশাল মঞ্চ। প্রধানমন্ত্রীকে স্মরণ কালের বৃহৎ সংবর্ধনা দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে পাবনা জেলা আওয়ামী লীগ। আর সব কিছু তদারকির দায়িত্বে রয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স এমপি।আয়োজনের প্রস্তুতি প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বলার অপেক্ষা রাখে না ১৪ জুলাই পাবনা পুলিশ লাইন্স ময়দান জনতার মহাসমুদ্রে পরিণত হবে। রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্প, রেল লাইনসহ অর্ধশত বড় উন্নয়ন কাজের বাস্তবায়নে পাবনাবাসী কতটা খুশি তা ভাষায় প্রকাশ করা যাবেনা। উন্নয়নের দৃষ্টান্ত স্থাপন করায় জননেত্রী শেখ হাসিনার উপর পাবনাবাসী ব্যাপক খুশী। পাবনাবাসী প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যোগদিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করবে।
উল্লেখ, আজ শনিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় প্রধানমন্ত্রী রূপপুর পারমানবিক প্রকল্পের দ্বিতীয় ইউনিটের ফার্স্ট কংক্রিট পোরিং ডেট (এফসিডি) কাজের উদ্বোধন করবেন। বেলা ৩টায় পাবনা জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করবেন।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author