হেলথ কেয়ারে আমরা ভারত থেকে এগিয়ে পাবনায়-স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম

রফিকুল ইসলাম সুইট : দেশে প্রথমবারের মত জাতীয় ভিটামিন ‘‘এ’’ প্লাস ক্যাম্পেইনের জাতীয় কর্মসুচির উদ্বোধন হয়েছে পাবনায়।
শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট পাবনা জেনারেল হাসাপাতালে কয়েকটি শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর মাধ্যমে এ কর্মসুচির উদ্ধোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদুর প্রসারি পরিকল্পনার কারণে দেশে স্বাস্থ্য বিভাগে অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ স্বাস্থ্য সবার ক্ষেত্রে অভুতপুর্ব সাফল্য অর্জিত হয়েছে। হেলথ কেয়ারে বাংলাদেশ ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপের চেয়ে এগিয়ে আছে। তিনি বলেন, মায়ানমারের নির্মমতার কারণে বাংলাদেশ ১০ লক্ষ রোহিঙ্গা প্রবেশ করে। অনেক দেশ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিতে রাজি হয়নি। কিন্ত প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদেরকে আশ্রয় দিয়ে সারা বিশ্বে মানবতার পরিচয় দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, মায়ানমারে থাকতে রোহিঙ্গারা কোন স্বাস্থ্যসেবা পায়নি। স্বাস্থ্য সেবার সংগে তারা পরিচিতও ছিলনা। প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশে আমরা রোহিঙ্গাদের খাবারের পাশাপাশি স্বাস্থ্য সেবা দিচ্ছি, তাদের টিকা দিয়েছি। মন্ত্রী বলেন, এই মানবতায় দৃষ্টান্ত রাখায় শেখ হাসিনা মাদার অব হিউ ম্যানিটি খ্যাতি অর্জন করেছেন। বিশ্বের কাছে তিনি মানবতার নেত্রী হিসেবে পরিচিত। পাবনার সিভিল সার্জন ডা. তাহাজ্জেল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, পাবনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট শামসুল হক টুকু, পাবনা-৫ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স, পাবনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লাল, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাবিবুর রহমান খান, রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক সুনীল কান্তি সাহা, আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য নুরুল ইসলাম ঠান্ডু। এসময় পাবনা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. রিয়াজুল হক, পাবনা মানসিক হাসপাতালের পরিচালক ডা. তন্ময় প্রকাশ বিশ্বাস, জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি আব্দুল হামিদ মাষ্টার, চন্দন কুমার চক্রবর্তী, বিএমএ’র সভাপতি ডা. গোলজার হোসেন, পাবনা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপরিচালক মাসুদা একরাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য বিভাগের অতিরিক্ত সচিব জানান, সারা দেশে ৬ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী ২ কোটি ২০ লক্ষ শিশুকে এই ভিটামিন খাওয়ানো হবে। শনিবার থেকে ৪ দিন ধরে ১ লক্ষ ৪০ হাজার কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এই কর্মসুচি চলবে। প্রতিটি কেন্দ্রে শিশুর বয়স ৬ মাস পুর্ণ হলে মায়ের দুধের পাশাপাশি পরিমাণমত ঘরে তৈরী সুষম খাবার খাওয়ানোর জন্য সকলকে পরামর্শ দেয়া হবে। পাবনার সিভিল সার্জন ডা. তাহাজ্জেল হোসেন জানান, এবারে পাবনা জেলায় ৬ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী ৩ লাখ ৮৫ হাজার ১৩৬ জন শিশুকে ভিটামিন ‘‘এ’’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। জেলায় মোট ১ হাজার ৮৩৫টি কেন্দ্রে ৩ হাজার ৯৭০ জন মাঠ কর্মী, সে¦চ্ছাসেবক এবং ১ম সারির তদারককারী এ কাজে নিয়োজিত থাকবেন।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author