পাবিপ্রবিতে প্রক্টর ও শিক্ষকের মারামারির ঘটনায় ক্যম্পাসে উত্তেজনা

রফিকুল ইসলাম সুইট :পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্টর ও এক শিক্ষকের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রক্টরসহ আরেক শিক্ষক লাঞ্চিত হয়। গত মঙ্গলবার রাতে বঙ্গবন্ধু হলের প্রভোষ্টের রুমের এই ঘটনায় ক্যাম্পাসে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক সূত্র জানায়, মঙ্গলবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হলের প্রভোষ্টের রুমে প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত একটি গোপন বৈঠক করছিলেন কয়েকজন শিক্ষক। বৈঠকের এক পর্যায়ে কমিটির দায়িত্ব ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে প্রক্টর প্রীতম কুমার দাসের সাথে বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান আরিফ ওবায়দুল্লাহর সাথে এই অনাকাংখিত ঘটনা ঘটে।
বঙ্গবন্ধু হলের আবাসিক কয়েকজন ছাত্র ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রভোষ্ট স্যারের রুমে প্রক্টর স্যারের সাথে বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান আরিফ ওবায়দুল্লাহ স্যারের মধ্যে উচ্চস্বরে ব্যাপক বাকবিতন্ডা শুনে আমরা অনেকেই সেখানে গেলে দেখতে পাই যে, প্রক্টর স্যার হন্তদন্ত হয়ে দৌড়ে রুম থেকে বেড়িয়ে যায়। এ সময় তারা পড়নের পোষাকাদিও এলোমেলো দেখা যায়। এতেই বুঝলাম যে, স্যারকে শারিরিক ভাবে লাঞ্চিত করা হয়েছে।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, রাতে একটি বিষয় নিয়ে গোপন বৈঠক করার সময় তাদের মধ্যে এই ঝামেলার সৃষ্টি হয়। বিষয়টি নিয়ে ক্যাম্পাসে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে বলেও তারা জানান।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রীতম কুমার দাসের মুঠোফোনে বার বার চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি। তবে পাবিপ্রবির জনসঙযোগ শাখার সহকারী পরিচালক ফারুক হোসেন চৌধূরী সাংবাদিকদের নিকট ঘটনার সত্যতার বিষয়ে স্বীকার করে বলেন, মারামারি ঠিক নয়, সামান্য কথাকাটাকাটি হয়েছিল মাত্র। এক সাথে কাজ করতে গেলে এমটি হয়েই থাকে বলেও তিনি জানান।
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো ভিসি ড. আনোয়ারুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ বিষয়ে আমি বিস্তারিত কিছু জানি না, আমি ঢাকায় যচ্ছি বলেও তিনি জানান।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author