Main Menu

রাজশাহীতে যুবককে পিটিয়ে হত্যায় আটক ৩

নাজিম হাসান, রাজশাহী থেকে:
রাজশাহী মহানগরীতে রাস্তায় ময়লা ফেলাকে কেন্দ্র করে মারধরের শিকার হয়ে এক যুবক নিহত হয়েছে। নিহত যুবকের নাম লিটন (৩৪)। তিনি রাজশাহী নগরীর রামচন্দ্রপুর (মিরেরচক) এলাকার বাসিন্দা ও মৃত মোতাল্লেবেন ছেলে। এবিষয়ে বোয়ালিয়া থানায় ৯জনের নাম উল্লেখ করে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্তরা হলেন, মৃত লিটনের চাচাতো ভাই ও মীরেরচক এলাকার বাসিন্দা মাহমুদ, বাবু, মনোয়ার, মাইনুল, মঞ্জুর ও তাদের স্ত্রী সোমা, হাসিনা, শিল্পী, রিকতা। তবে অভিযুক্তদের নামের তালিকা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন নিহতের স্বজনরা। এদিকে ঘটনার সম্পৃক্ততায় এরই মধ্যে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে বোয়ালিয়া থানা পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন মীরেরচক এলাকার মুজাহিদের স্ত্রী শিল্পী (৫০), মইনুলের স্ত্রী রিকতা (৩৫) ও মৃত আজিজুলের ছেলে মাহমুদ (৪৫)। বাঁকিরা পলাতক রয়েছে। নিহতের স্বাজনদের দেয়া তথ্য মতে, গত সোমবার (১৭ সেপ্টেম্বার) সন্ধ্যা আনুমানিক সাড়ে ছয়টায় নিহত লিটনের চাচাতো ভাই মাহমুদের বৌ সোমা বাড়ির পাশের রাস্তায় ময়লা ফেলছিল। এসময় পাশের বাড়িতে থাকা লিটন তা দেখতে পেয়ে সোমাকে রাস্তায় ময়লা ফেলতে নিষেধ করে। এসময় উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে সোমার স্বামী ও অন্যান্য ভাই ও তাদের বৌয়েরা একত্রিত হয়ে এসে লিটনের উপর চড়াও হয়। এসময় লিটনকে তারা এলোপাথাড়ি কিল-ঘুষি ও রড দিয়ে প্রহার করে। প্রসঙ্গত এদের প্রত্যেকেই নিহত লিটনের আত্মিয়। ঘটনার পর উল্টো সোমা ও তার পরিবারই নিহত লিটন ও তার বিধবা মায়ের নামে পুলিশে অভিযোগ দেয় এবং পুলিশ নিয়ে আসে। পরে স্থানীয়রা বিষয়টি নিজেদের মধ্যে মিমাংসার আশ্বাস দিলে পুলিশ চলে যায়। এদিকে ঘটনার পর থেকে লিটন অসুস্থ ছিল। গতকাল মঙ্গলবার রাতে শ্বারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজশাহী মেডিকের কলেজ (রামেক) হাসপাতারে ভর্তি করা হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় লিটন সেখানে মারা যান। বুধবার দুপুরে ময়না তদন্ত শেষে তার লাশ বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বোয়ালিয়া থানার অফিস ইনচার্জ (ওসি) আমান উল্লাহ বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, এবিষয়ে আমরা অভিযোগ পেয়েছে। এরই মধ্যে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। বাঁকিদের ধরার চেষ্টা চলছে। অভিযুক্তদে বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।