প্রধান মেনু

ট্রাম্প ও ক্রাইস্টচার্চ হামলার সমর্থক টেক্সাসের বন্দুকধারী

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে বন্দুক হামলায় ২০ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় হামলাকারী একজন বর্ণবাদী। মার্কিন গণমাধ্যম জানিয়েছে, তার নাম প্যাট্রিক ক্রুসিয়াস। সে মূলত লাতিন আমেরিকান বিদ্বেষী। হামলার আগে অনলাইনে পোস্ট করা এক ‘ইশতেহারে’ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলাকে সমর্থন জানায় সে।

মার্কিন গণমাধ্যম জানায়, হামলাকারী বিভিন্ন টুইটেও লাতিন আমেরিকান অভিবাসীদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়াতো। ‘ষড়যন্ত্র তত্ত্ব’ প্রচার করে এমন অনলাইন গ্রুপে অ্যাকটিভ ছিলো সে।

প্যাট্রিকের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে করা পোস্টে একাধিকবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পেরও প্রশংসা করা হয়েছে।

হামলা চালাতে ৯ ঘণ্টা গাড়ি চালিয়ে এল পাসো শহরে এসেছিলো এই শেতাঙ্গ বর্ণবাদী। এল প্যাসো থেকে প্রায় ৬৫০ মাইল (১০৪৬ কিলোমিটার) পূর্বে অ্যালেনের ডালাস-অঞ্চল নগরীর বাসিন্দা সে।

রবিবার টেক্সাসের এল পাসো শহরে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এতে আহত হয়েছেন আরও ২৬ জন।

স্থানীয় সময় সকালে যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকান সীমানা থেকে কয়েক মাইল দূরে সিয়ালো ভিস্তা শপিং মলের কাছে খুচরা বিক্রির দোকান ওয়ালমার্টের একটি স্টোরে বন্দুকধারী হামলা চালায়।

২১ বছর বয়সী এক তরুণকে ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে এবং তিনিই একমাত্র হামলাকারী বলে মনে করা হচ্ছে। তাকে গ্রেপ্তারকারী পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রশংসা করেছেন মার্কিন জনপ্রতিনিধিরা।

সিসিটিভির ছবি বন্দুকধারীর বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। মার্কিন মিডিয়াতে সম্প্রচারিত ফুটেজে দেখা যায়, একটি কালো টি-শার্ট ও কানে প্রোটেক্টর পরা একজন তরুণ একটি অ্যাসল্ট রাইফেল হাতে শোরুমটিতে ঢুকছেন।

টেক্সাসের গভর্নর গ্রেগ অ্যাবোট এটিকে “টেক্সাসের ইতিহাসের সবচেয়ে মারাত্মক দিন” হিসাবে বর্ণনা করেছেন।