যে দোয়া পাঠে সাগরের ফেনা সমতুল্য গুনাহ মাফ হয়ে যায়

চলার পথে আমরা জেনে না জেনে কতই গুনাহ করে থাকি যা আল্লাহপাক জ্ঞাত। অনেক সময় বুঝিও না যে গুনাহর কাজ করছি। তবে মহান আল্লাহ গুনাহ থেকে মুক্তি লাভের কিছু পথ বলে দিয়েছেন। আর হযরত মুহাম্মদ (সা.) মহানবী (সা.) আল্লাহ আদেশ ব্যাখ্যা করে উম্মতদের বুঝিয়ে দিয়েছেন।
গুনাহ মাফের দোয়াটি হলো- سُبْحَانَ اللهِ، اَلْحَمْدُ ِللهِ، اَللهُ أَكْبَرُ، لآ إلهَ إلاَّ اللهُ وَحْدَهُ لاَ شَرِيْكَ لَهُ، لَهُ الْمُلْكُ وَ لَهُ الْحَمْدُ وَ هُوَ عَلَى كُلِّ شَيْئٍ قَدِيْرٌ-

বাংলা উচ্চারণ: সুবহা-নাল্লা-হ (৩৩ বার)। আলহাম্দুলিল্লা-হ (৩৩ বার)। আল্লাহু-আকবার (৩৩ বার)। লা ইলা-হা ইল্লাল্লা-হু ওয়াহ্দাহূ লা শারীকা লাহূ; লাহুল মুল্কু ওয়া লাহুল হাম্দু ওয়া হুয়া ‘আলা কুল্লে শাইয়িন ক্বাদীর (১ বার)। অথবা আল্লা-হু আকবার (৩৪ বার)।

অর্থ : পবিত্রতাময় আল্লাহ। যাবতীয় প্রশংসা আল্লাহর জন্য। আল্লাহ সবার চেয়ে বড়। নেই কোন উপাস্য একক আল্লাহ ব্যতীত; তাঁর কোন শরীক নেই। তাঁরই জন্য সমস্ত রাজত্ব ও তাঁরই জন্য যাবতীয় প্রশংসা। তিনি সকল কিছুর উপরে ক্ষমতাশালী। (মুসলিম, মিশকাত হা/৯৬৬, ৯৬৭, ‘ছালাত’ অধ্যায়-৪, ‘ছালাত পরবর্তী যিকর’ অনুচ্ছেদ-১৮)।

রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) বলেন,
‘যে ব্যক্তি প্রত্যেক ফরয ছালাতের পর উক্ত দোয়া পাঠ করবে, তার সকল গোনাহ মাফ করা হবে। যদিও তা সাগরের ফেনা সমতুল্য হয়’। (মুসলিম, মিশকাত হা/৯৬৭)।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author