Main Menu

অপহরণের ১৬ দিনেও উদ্ধার হয়নি সাঁথিয়ার কলেজ ছাত্রী

পাবনা প্রতিনিধি ॥ পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার এক কলেজ ছাত্রীকে (১৬) অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ১৬ দিন পার হলেও পুলিশ ছাত্রীকে উদ্ধার করতে পারেনি। ছাত্রীটিকে ফিরে পাওয়ার আশায় তার বাবা পুলিশসহ বিভিন্ন স্থানে ধরনা দিয়ে বেড়াচ্ছেন।
থানায় দায়ের করা অভিযোগ ও তার পরিবার সূত্রে জানা যায়, সাঁথিয়া মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেণিতে পড়াশোনা করে ওই শিক্ষার্থী। বেশ কিছুদিন ধরে তাকে শাহজাদপুর উপজেলার চিথুলিয়া গ্রামের আলহাজ আলীর ছেলে আব্দুল্লাহ (২০) ওই ছাত্রীটিকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। কিন্তু এতে সাড়া না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২৮ জানুয়ারি বিকাল চারটার দিকে কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে সাঁথিয়া ইছামতী সেতুর কাছে ছাত্রীকে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় জোড় করে তুলে নিয়ে যায় আব্দুল্লাহ।
এ ঘটনার পর ছাত্রীর বাবা আত্মীয়-স্বজন ও এলাকার মুরুব্বীদের নিয়ে শাহাজাদপুর উপজেলার চিথুলিয়া গ্রামে আব্দল্লাহর বাড়িতে একাধিকবার যান। আব্দুল্লাহর পরিবারের লোকজন তাতে সাড়া পাওয়া না। ছাত্রীর বাবা ৩০ জানুয়ারি তিনি শাহাজাদপুর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। পুলিশ মামলার আসামি আব্দল্লাহর ভাই বিপুলকে (১৮) গ্রেপ্তার করতে পারলেও প্রধান আসামি আব্দুল্লাহকে এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি। এ ছাড়া অপহরণের প্রায় ১৬দিন পার হলেও অপহরণের শিকার ছাত্রীটিকে পুলিশ এখনও উদ্ধার করতে পারেনি।
অপহৃত ছাত্রীর বাবা গোলাম মোস্তফা বলেন, ‘আমার মেয়েটিকে দিনে-দুপুরে অপহরণ করা হয়েছে। ১৬ দিন পার হলেও ওর কোনো খোঁজ জানিনা। ওর ভালোমন্দ নিয়ে চরম উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় দিন কাটছে আমাদের। সে বেঁচে আছে কিনা জানি না। আমি আমার মেয়েকে সুস্থভাবে ফিরে পেতে কত জায়গাতেই না ধরনা দিচ্ছি। আমি প্রশাসনসহ সবার সহযোগিতা কামনা করছি।’
সাঁথিয়া থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘আসামিদের বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলার শাহাজাদপুর উপজেলায়। এর পরেও আমরা শাহাজাদপুর থানা পুলিশের সহযোগিতায় আসামীদের গ্রেফতারের পাশাপাশি মেয়েটিকে উদ্ধারের চেষ্টা করছি। ইতিমধ্যে আমরা এক আসামিকে গ্রেফতারও করেছি।