পাবিপ্রবিতে ভিসি’র দেড় কোটি টাকার গাড়ি কেনায় শিক্ষার্থীদের মুখ বন্ধ রাখতে নতুন বাস

পাবনা প্রতিনিধি:
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবারো শিক্ষার্থীদের জন্য অনয়িম ও দূর্নীতির মধ্য দিয়ে দূর্নীতিবাজ নির্বাহী প্রকৌশলীকে দিয়ে নতুন বাস ক্রয় করা হলো। এ নিয়ে ক্যম্পাসে তীব্র প্রতিক্রিয়ার ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে শিক্ষক কর্মকর্তা কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ভিসি স্যার একটি পাজেরো জীপ গাড়ি থাকা সত্বেও দেড় কোটি টাকা দিয়ে আরেকটি জীপ গাড়ি ক্রয় করছেন, তার এই গাড়ি বিলাসীতায় শিক্ষার্থীদের মুখ বন্ধ রাখতেই ছাত্রদের জন্যে তরিঘরি করে বাসটি ক্রয় করা হয়েছে।

পাবিপ্রবির কয়েকজন শিক্ষক-কর্মকর্তারা নাম প্রকাশ না করার শর্তে ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, এই বৈষম্যে দূর করা প্রয়োজন। ভিসি স্যার একটি গাড়ি ব্যবহার করছেন, আরেকটি তার পরিবারের জন্যে রাজশাহী ব্যবহার করছেন। তাপরও আরেকটি দেড়দুই কোটি টাকা দিয়ে নতুন গাড়ি ক্রয় করার কথা শুনছি বিষয়টি খুবই কষ্টের। কেননা যেখানে শিক্ষকদের গাড়ির জন্যে রাস্তায় রোদে বৃষ্টিতে দাড়িয়ে থাকতে হয়। দেড় কোটি টাকার গাড়ি হালাল করতেই শিক্ষার্থীদের জন্যে গোপনীয়তার সাথে একটি বাস ক্রয় করা হলো।

পাবিপ্রবির দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেনীকক্ষ সংকট, শিক্ষকদের বসার রুম নেই, সকল শিক্ষকদের পরিবহনের জন্যে মাত্র ৪টি মাইক্রোবাস, ছাত্র ও কর্মকর্তাদের জন্যে ভাড়া করা বাসে মাসে দশ লক্ষাধিক টাকা ব্যায় হয়। সেই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসি ড. রুস্তম আলী একটি গাড়ি ব্যবহার করেন এবং আরেকটি গাড়ি (পাবনা-ঘ-১১-০০১৭) তার পরিবারের জন্যে রাজশাহীতে ব্যবহার করছেন। আবারো দেড় কোটি টাকা ব্যায়ে নতুন আরেকটি গাড়ি ক্রয় করার সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। শিক্ষার্থীরা দেড় কোটি টাকার গাড়ি নিয়ে আন্দোলন সংগ্রাম করতে পারে বলে তাদের মুখ বন্ধ রাখতে শিক্ষার্থীদের জন্যে তরিঘরি করে দূর্নীতির অভিযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকুরীচূত নির্বাহী প্রকৌশলীকে দিয়ে বাসটি ক্রয় করা হয়েছে বলে দাবী করেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদ চৌধূরী আসিফ ও সাধারন সম্পাদক ফরিদুল ইসলাম বাবু। তারা আরো বলেন, দূর্নীতির মাধ্যমে পুরাতন বাস রং করে আনার কারনেই কাউকে জানানো হয়নি বলেও দাবী তাদের।
শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রার্থী ড. হাসিবুর রহমান বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয় শুরুর দিকে প্রকল্প পরিচালকের জন্যে বরাদ্দকৃত গাড়িটি প্রোভিসি ড. আনোয়ারুল ইসলাম ব্যবহার করতেন। গাড়িটি সম্পূর্ণ সচল থাকলেও সম্প্রতি প্রোভিসি ও কোষাধাক্ষ্যর জন্যে প্রায় দুই কোটি টাকা দিয়ে দুটি গাড়ি ক্রয় করা হয়েছে। সেখানে বর্তমান ভিসি ড. রুস্তম আলীর ব্যবহৃত গাড়িটি প্রায় ৭০ লক্ষ টাকা মুল্যের হলেও প্রোভিসি ও কোষাধ্যাক্ষ’র গাড়ি কোটি টাকা মুল্যের। বিষয়টি বেমানান, তাই ভাইস চ্যান্সেলরের জন্যে এরচেয়ে দামী অরেকটি গাড়ি কেনার তৎপরতা চলছে। আর প্রক্টরকে একটি পাজেরো জীপ গাড়ি ব্যবহার করতে দেওয়া হয়েছে যা সম্পূর্ণ বেমানান। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের মধ্যে গাড়ি বিলাসীতা চলছে বলে আমার মনে হয়।
ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের শিক্ষক কামাল হোসেন বলেন, ক্যম্পাসে শিক্ষার্থীদের জন্যে নতুন বাস ক্রয় করা হলো অথচ ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক কর্মকর্তা বা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নৃতৃবৃন্দ জানেন না। বিষয়টি কৌতুহলের বটে, কেন এতো গোপনীয়তা।
এ বিষয়ে পাবিপ্রবি প্রো-ভিসি আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ভিসি স্যার কি বুঝে এই ধরনের কাজ করছেন আমার বোধগম্য নয়। গাড়িটি কে, কেন, কাদের জন্যে কিনেছেন? আমি কিছুই জানি না। যেহেতু আমরা অনেকেই গাড়ি ক্রয়ের বিষয়টি জানি না, তাই দূর্নীতি হয়েছে কি না? এ ব্যাপারে আমি কিছু বলতে পারছি না। আমি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভাবে ২য় অবস্থানে কর্মরত থাকলেও বিষয়টি আমার জানা নেই।
এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের সহকারী পরিচালন ফারুক হোসেন চৌধুরী স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, সোমবার সকালে উপাচার্য ৫২ আসনের বাসটি উদ্বোধন করেন। এ সময় অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার বিজন কুমার ব্রহ্ম, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট ড. মুশফিকুর রহমান, পরিবহন পুলের প্রশাসক মোঃ রাশেদুল হকসহ কয়েকজন উপস্থিত ছিলেন। যারা উপস্থিত ছিলেন তারা সবাই ভিসির নিকটজন বলে পরিচিত ক্যম্পাসে।
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি রোস্তম আলী ফরাজী বলেন, শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনের কথা বিবেচনায় এনে বাসটি ক্রয় করা হয়েছে। গোপনের বিষয়ে কথা হলে তিনি মোটেও বাস ক্রয়ে দূর্নীতি হয়নি। এটি নতুন বাস ক্রয় করা হয়েছে পুরাতন বাসে রং দেওয়ার বিষয়টি তিনি স্বীকার করেন।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author