চকবাজার ট্রাজেডি কেড়ে নিয়েছে একটি স্বপ্ন। পাবনার মেধাবী মেডিকেল কলেজ ছাত্র রাসু আগুনে পুড়ে মারা গেছে।

মোবারক বিশ্বাস, পাবনা থেকে ঃ পুরান ঢাকার চকবাজারের ভয়াবহ জলন্ত আগুন অনেকের মত পাবনার শিক্ষক দম্পত্তির স্বপ্নও কেড়ে নিয়েছে। ছেলে ডাক্তার হয়ে বের হবে। গ্রামের অসহায় গরিব রোগীদের চিকিৎসা করবে। মানুষ গড়ার কারিগর সেই শিক্ষক দম্পতির স্বপ্ন আগুনে পুড়ে শেষ হয়ে গেছে। এখন শুধু তাদের দুচোখে অশ্র ছাড়া আর কিছুই নেই।
পুরান ঢাকার চকবাজারের ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় পাবনার রাসু নামে একজন নিহত হয়েছে। নিহতের বাড়ি বেড়া উপজেলার নতুন ভারেঙ্গা ইউনিয়নের সোনাপদ্ম গ্রামে। নিহত ইমরোজ ইমতিয়াজ রাসু নতুন ভারেঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম ও শিক্ষিকা জান্নাতুল ফেরদৌসের ছেলে। নিহত রাসু বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজের ডেন্টাল বিভাগের ৩য় বর্ষ ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র। ঢাকার চকবাজারে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় রাসু আগুনে পুড়ে মারা যায়। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের চলছে শোকের মাতম। ছেলেকে হারিয়ে বাবা-মা বিলাপ করে বার বার মুর্চ্ছা যাচ্ছে। ৩ ভাই ও দুই বোনের মধ্যে রাসু ৩য় ছিলেন। বাবা মায়ের আদরের সন্ত্রান ডাক্তার হয়ে বের হবে। রাসুরও ইচ্ছা ছিল সে ডাক্তার হয়ে গ্রামে এসে গরিব-অসহায়দের চিকিৎসা সেবা প্রদান করবে। মানুষ গড়ার কারিগর শিক্ষক বাবা মায়ের মত ছেলেও মানুষের সেবা করবে এমন ইচ্ছা ছিল শিক্ষক দম্পত্তির। কিন্তু চকবাজারের ট্রাজেডি সে স্বপ্ন ভেঙ্গে চুরমার করে দেয়।
রাসুর মা জান্নাতুন ফেরদৌস বলেন, রাসু ডাক্তার হয়ে গ্রামে এসে চেম্বার খুলে সাধারন মানুষদের চিকিৎসা সেবা দিবে। তিনি বলেন, তার দুই ভাই ডাক্তার তারা গ্রামে এলে অসহায় মানুষদের বিনা পয়সায় চিকিৎসা সেবা দেন। আজ সকালে নিহত রাসুর লাশ এলাকায় এসে পৌছালে শত শত গ্রামবাসী এক নজর তাকে দেখার জন্য ভীড় করে। স্বজনদের আহাজারিতে আকাশ বাতাশ ভারী হয়ে উঠে। নতুন ভারেঙ্গা স্কুল মাঠে জানাযা শেষে স্থাণীয় কবর স্থানে তাকে দাফন করা হয়। জানাযায় উপস্থিত ছিলেন বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসিফ আমান সিদ্দিকিসহ রাসুর সহপাঠি, স্কুলের শিক্ষার্থী, গ্রামবাসীসহ, স্থানীয় রাজনৈতিক, সামজিক ব্যাক্তিবর্গ।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author