Main Menu

রাজশাহীতে বাগানে আম বেশি থাকায চাষীরা খুশি

নাজিম হাসান,রাজশাহী প্রতিনিধি:
গত বছরের তুলনায় এ বছরও রাজশাহীতে আমরাজ্য হিসেবে খ্যাত গাছে গাছে থোকায় থোকায় ঝুলছে আম। দিন যত যাচ্ছে ক্রমেই তা বেড়ে উঠছে। গত বছর আম চাষ করে লাভবান না হলেও এবার আম চাষ করে লাভের মুখ দেখবেন চাষীরা। আম চাষিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত বছরের তুলনায় আবহাওয়া অনেকটা অনুকূলে থাকায় এ বছর প্রচুর পরিমাণ গাছে মুকুল আসে। সেই সাথে প্রাকৃতিকভাবে গাছের পরিচর্যা করায় গাছে আশানুরূপ আম দেখা যাছ্ছে। তাই হাজার হাজার বাগানের গাছে গাছে পাতার ফাঁকে ফাঁকে সবুজ আমের দেখা মিলছে সহজেই। উঁকি দিচ্ছে বিভিন্ন জাতের আম। আম স্বপ্নের দোলা দিচ্ছে চাষীদের মনে। এবং বড় ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে আমের ফলন এবারও গত বছরের মতই ভালো হবে বলে মনে করছেন তারা। এখানে রয়েছে ফজলি,গোপালভোগ,খিরসাপাত,রানী পছন্দ, ল্যাংড়া, বারি-৩ (আম্রপলি) ও আশ্বিনা জাতের আম দেশ সেরা। এছাড়াও রয়েছে গুটি জাতের বেশকিছু আম। রাজশাহীর প্রায় এলাকাতেই আমের আবাদ হয়। আর এছাড়া অনেকে অন্য ফসলের জমিতে এবং অন্য ফসলের সঙ্গেও আমের আবাদ করছেন। তবে গত মৌসুমের আম চাষে ফরমালিনের ব্যবহার ঠেকাতে জেলা প্রশাসন কর্তৃক কঠোর অবস্থানের ফলে চাষিরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বলে জানিয়েছেন চাষীরা। সরজমিনে ঘুরে দেখাগেছে,রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ী,তানোর,বাঘা,চারঘাট,পুঠিয়া,দুর্গাপুর,বাগমারা,মোহনপুর ও পবা উপজেলার হাজার হাজার বাগানের গাছে গাছে পাতার ফাঁকে ফাঁকে সবুজ আমের দেখা মিলছে সহজেই। উঁকি দিচ্ছে বিভিন্ন জাতের আম আম স্বপ্নের দোলা দিচ্ছে চাষীদের মনে। এবং বড় ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে আমের ফলন এবারও ভালো হবে বলে মনে করছেন তারা। সারি সারি আম বাগানে সবুজ সতেজতায় নয়ন জুড়িয়ে যাবে যে কারও। থোকায় দেখা মিলছে আম। এখনও নুইয়ে না পড়লেও গাছের চিকন ডালে বেশ ভার ধরেছে। মাঝে মাঝে বয়ে আসা বৈশাখের বাতাসে দোলা দিয়ে উঠছে সেই আম। বাগানে বাগানে এখন কৃষকের সোনালি স্বপ্ন বাতাসে দোল খাচ্ছে। সবুজ পাতার ফাঁকে কদিন আগের মুকুল থেকে জন্ম নেয়া গুটি পূর্ণতা পাচ্ছে আমে। কৃষি বিভাগ বলছেন, আবহাওয়াগত কারণে এবার কিছুটা আগে আগেই গাছে মুকুল আসে। তাই কিছুটা আগেই বাজারে আসবে আম। আর কিছু দিন পরেই মধুমাস জ্যৈষ্ঠ। মধু মাসের রসালো ফল আম রাজশাহীর বাজারে আসার অপেক্ষা এখন। তাই গাছের পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন চাষিরা। এছাড়া এখন যে পরিমাণ আম গাছে ঝুলছে তাতে ভালো ফলন আশা করা যায়।