প্রধান মেনু

পাবনায় ১ম শ্রেণীর ছাত্র বলাৎকারের স্বীকার

পাবনা সদর উপজেলার আতাইকুলা থানার শ্রীকোল গ্রামের ইনতাজের ছেলে ইকরাম (২২) একই গ্রামের কাঠ মিস্ত্রী কুরবান আলীর ১ম শ্রেণীতে পড়–য়া শিশু (০৭) কে ধারালো চাকু দেখায়ে মুখ বেধে পার্শ্ববর্তী পাট ক্ষেতে নিয়ে বলাৎকার করে। বেশ কয়েকদিন একাধিকবার শিশুটিকে বিভিন্ন ভাবে ভয় ভীতি দেখায়ে শিশুটিকে বলৎকার করা হয়েছে বলে শিশুটি এ প্রতিবেদককে জানায় । সে আরও জানায় কাউকে বিষয়টি না বলার জন্য তাকে ভয় দেখানো হয়েছে। সন্ত্রাসী ইকরাম শিশুটিকে বলেছে যদি সে তার বাবা-মা কে বা অন্য কাউকে বলে দেয় তা হলে তাকে এবং তার বাবা মাকে হত্যা করবে। সর্বশেষ ৭/৮ দিন আগে ইকরামের বলৎকারে শিশুটির মলদার ফেটে যায় রক্তক্ষরণ হতে থাকে। শিশুটি বাড়িতে আসলে তার মা ছেলের পেছন দিয়ে রক্ত বের হতে দেখে পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। ডাক্তার শিশুটিকে দেখে বিস্তারিত তার মা বাবাকে বলে যে, আপনার ছেলেকে বলাৎকার করা হয়েছে। শিশুটি প্রান ভয়ে কাউকে কিছু বলতে সাহস পায়নি। শিশুটির মা বাবা অভিযোগ করে বলেন যে সন্ত্রাসী ইকরাম আমাদেরকেও প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। এ ঘটনায় শিশুটি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। শিশুটির শরীরে কয়েক ব্যাগ রক্ত দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে শিশুটির গরীব পিতা কাঠ মিস্ত্রী কুরবার আলী জানান, আমি গরীব, ছেলের চিকিৎসা করাতে অনেক টাকা ব্যয় হয়ে গেছে। মামলা করতে গেলে সন্ত্রাসী ইকরাম আমাদের পরিবারের ক্ষতি করবে। পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস ( পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার) কে এ ঘটনাটি জানানো হয়। তিনি ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিকে আইনের আওতায় দ্রুত আনার ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।