Main Menu

বিয়েতে রাজি না হওয়ায় মেয়েকে ছুরি মেরে খালে ফেলে দেন বাবা

মেয়েটি চাইছিলেন লেখাপড়া চালিয়ে যেতে। কিন্তু পরিবার ইচ্ছা তাকে ভালো ছেলে দেখে তাড়াতাড়ি বিয়ে দেওয়ার। এ নিয়ে ১৫ বছর বয়সী ওই কিশোরীর সঙ্গে তার বাবা-মার সংঘাত চরমে ওঠে। এক পর্যায়ে মেয়েকে ছুরি মেরে খালে ফেলে দেন পাষণ্ড বাবা।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশের শাহজাহানপুরে। মেয়েটি এখন হাসপাতালে মৃত্যু সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।

দেশটির স্থানীয় গণমাধ্যম জি-নিউজকে মেয়েটি বলেছেন, বাবা আমাকে খালের পাড়ে একটি নির্জন জায়গায় নিয়ে যায়। তার সঙ্গে ছিল আমার ভাই। ও আমার গলায় একটা কাপড় দিয়ে পেঁচিয়ে ধরে। আর পেছন থেকে বাবা একটি ছুরি দিয়ে আমাকে কোপাতে থাকে। চিত্কার করে আমি ওদের থামতে বলি। কিন্তু বাবা থামেনি। বাবার একটাই দাবি, পড়াশোনা বন্ধ করে বিয়ে করতে হবে।

ছুরিকাঘাত করার পর ওই কিশোরীকে খালে ঠেলে ফেলে দেয় বাবা। কিন্তু পানিতে পড়ে যাওয়ার পর সে সাঁতরে কিছুটা দূরে চলে গিয়ে লুকিয়ে থাকে। পরে গোটা ঘটনাটি প্রকাশ্যে চলে আসে।

ওই কিশোরীর দুলাভাই বলছেন, আমি ওর বোনের স্বামী। বেশ কয়েকমাস আমাদের বাড়িতে ছিল। ওর বাবা-মা চাইতো না ও পড়াশোনা করুক। কয়েকদিন আগে ওকে ওর বাবা-মা বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে যায়। খবর পেয়েছি ওকে আহত অবস্থায় খালের কাছে পাওয়া গেছে।

এ ঘটনার পর মেয়েটির বাবা ও ভাইকে ভারতীয় পুলিশ এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি। তবে চেষ্টা অব্যাহত আছে।