Main Menu

পাবনার ঈশ্বরদী

বাংলাদেশের সবচেয়ে দীর্ঘ রেলসেতু হার্ডিঞ্জ ব্রিজ

পাবনা জেলার  ঈশ্বরদী উপজেলার পাকশী রেলওয়ে স্টেশন সংলগ্ন একটি রেলসেতু। এটি বাংলাদেশের সবচেয়ে দীর্ঘ রেলসেতু হিসেবে পরিচিত। পাবনা জেলার পাকশী রেলষ্টেশনের দক্ষিণে পদ্মা নদীর উপর এই সেতুটি অবস্থিত। এই সেতুর নির্মাণকাল ১৯০৯-১৯১৫। তৎকালীন ভাইসরয় লর্ড হার্ডিঞ্জের নাম অনুসারে এই সেতুর নামকরণ করা হয়। হার্ডিঞ্জ ব্রিজের দৈর্ঘ্য ১,৭৯৮.৩২ মিটার বা ৫৮৯৪ফুট বা ১.৮ কিমি। এর উপর দুটি   ব্রড- গেজ রেললাইন রয়েছে।

লালন শাহ্ সেতু হার্ডিঞ্জব্রীজের  অদূরে পদ্মা নদী উপর নির্মিত সেতু। সেতুটি ২০০১ সালের ১৩ জানুয়ারী গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। সেতুটি নির্মাণ শুরু হয় ২০০৩ সালে। সেতুটির দৈর্ঘ্য ১.৮ কিমি এবং প্রস্থ ১৮.১০ মিটার। চীনের প্রতিষ্ঠান মেজর ব্রীজ ইঞ্জিনিয়ারিং ব্যুরো এর নির্মাণ কাজ করেন। মোট স্প্যনের সংখ্যা ১৭টি। সেতুটি সম্পূর্নভাবে যানচলাচল জন্য ১৮ মে ২০০৪ সালে উদ্বোধন করেন। সেতুটির দুই লাইন বিশিষ্ট। সেতুর পশ্চিম পাশে ৬.০০ কিঃ মিঃ (ভেড়ামারা-কুষ্টিয়া) এবং পূর্ব পাশে অবস্থিত (পাকশী- ঈশ্বরদী) সেতুটি তৈরী। এই সেতু  বাংলাদেশের বৃহত্তম দ্বিতীয় সড়ক সেতু। লালন শাহ্ সেতু বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়ন এবং পরিবহন ব্যবস্থা প্রসারে অনেক অবদান রেখে চলেছে।