Main Menu

প্রতারক ইয়াছিনের খপ্পরে পরে সর্বসান্ত ২০ পরিবার

প্রতারক ইয়াছিনের খপ্পরে পরে সর্বসান্ত অসহায় ২০ পরিবার। প্রতারনার এ ঘটনাটি ঘটেছে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের প্রত্যেন্ত পশ্চিম বংকিরাট গ্রামে।
থানায় লিখিত অভিযোগ সূত্রে ও সরেজমিনে জানা গেছে, ওই গ্রামের আব্দুল খালেক শাহ’র ছেলে পশ্চিম বংকিরাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পিয়ন কাম নাইটগার্ড ইয়াছিন আলী , একই গ্রামের অসহায় আমিন প্রাং, রিপন হোসেন, ইব্রাহীম, বাচ্চু, শাহজাহান, রন্জু, শমসের শাহ, রেজাউল ও আফজাল শাহ। মোহনপুর গ্রামের হেলাল উদ্দিন, সোহাগ কন্ডু, গোলাম মোস্তফা, গোলাম কিবরিয়া,আবু তোহা ও মো: শান্ত। দহকুলা গ্রামের শ্রী কানন, গোবিন্ধপুর গ্রামের তাহের হোসেন এবং রুদ্ধগাতি’র মো: শাহাদৎ হোসেনেরর কাছ থেকে বিভিন্ন কাজ পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে কৌশলে প্রায় ১ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে আত্বগোপন করে। সর্বশান্ত অসহায় পরিবার গুলো জানান, এক বছরের বেশি সময় প্রতারক ইয়াছিন আমাদের টাকা হাতিয়ে নিয়ে আত্ব গোপন করে আছে। এখুন ওই টাকার সুদ দিতেই হিমশিম খেতে হচ্ছে।
এবিষয়ে বক্তব্য নিতে ইয়াছিনের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি।
এদিকে প্রতারক ইয়াছিন দীর্ঘ এক বছরেও বেশি সময় তার কর্মস্থল পশ্চিম বংকিরাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনুপস্থি থেকে চাকুরীতে বহাল তবিয়তে।
এলাকাবাসীর অভিযোগ স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির সাথে যোগসাজশে প্রতারক ইয়াছিন কর্মস্থলে না থেকেও চাকুরীতে বহাল তবিয়কে আছেন।
এব্যাপারে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো: আবু সাইদ ইয়াছিনের অনুপস্থিতির বিষয় স্বীকার করে বলেন , বিষয়টি উর্দ্ধতন কতৃর্পক্ষকে অবগত করা হয়েছে।
এবিষয়ে উল্লাপাড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার এম জিয়া’আর মাহমুদ ইজদানি বলেন, আগামি শিক্ষা কমিটিরি সভায় ইয়াছিনের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।