Main Menu

‘ভালো সিনেমা নির্মাণের পাশাপাশি হলের আধুনিকায়নে ইন্ডাস্ট্রি ঘুড়ে দাঁড়াবে’

গত ২১ জুন তার অভিনীত ‘বিবাহ অভিযান’ সিনেমাটি মুক্তি পায়। সিনেমাটি কলকাতায় মুক্তির পর থেকে দর্শকের কাছে প্রসংশা পায়। বাংলাদেশে প্রথমবার সুপারস্টার শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন ‘শাহেনশাহ’ সিনেমার মাধ্যমে। এটি পরিচালনা করেছেন শামীম আহমেদ রনি। শিগগির এ ছবিটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এছাড়াও প্রথমবার বাপ্পীর সঙ্গে জুটি হয়ে ঢাকা-২০৪০ সিনেমায় অভিনয় করছেন। বর্তমানে ছবিটির শুটিংয়ে টাঙ্গাইলে অবস্থান করছেন।

কলকাতার ছবি ‘বিবাহ অভিযান’ নিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গত ২১ জুন কলকাতায় সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে। সেখানে ছবিটি দর্শকরা গ্রহণ করেছেন। অঙ্কুশের সাথে জুটি হয়ে কাজ করেছি। আমাদের এই জুটিটা দুই দেশেই গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে। এছবিটি কলকাতা থেকে বাংলাদেশেও মুক্তি পাবে। বাংলাদেশের দর্শকরাও সুন্দর ছবিটি দেখতে পারবেন।

ছবিটির গল্প প্রসঙ্গে বলেন, ছবির পোস্টারে অনেক কিছুর আভাস পাওয়া যায়। এ ছবির পোস্টারে আমাকে ও অঙ্কুশকে একেবারে সেজেগুজে পাগড়ি-ফুলের মালা পরে দাঁড়িয়ে থাকতে দর্শকরা দেখতে পাচ্ছেন। তবে ছবিটির বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো, চিরাচরিতভাবে স্ত্রী তুলনামূলক লাজুক থাকলেও নুসরাত মোটেও তেমন ছিলেন না, বরং অঙ্কুশই মাথা নিচু করে দাঁড়িয়ে আছেন।

‘শাহেনশাহ’ সিনেমায় কেমন চরিত্রে দর্শকরা ফারিয়াকে দেখবেন? এর উত্তরে নুসরাত ফারিয়া বলেন, এ ছবিতে আমাকে ভিন্ন সাজে ও ভিন্ন এক লুকে দর্শকরা দেখতে পাবেন। যা অন্য সিনেমায় দেখা যায়নি। আর শাকিব খানতো আগে থেকেই নাম্বার ওয়ান। উনার বিপরীতে কাজ করেও বেশ ভালোলাগছে আমার। খুবই হেল্পফুল একটা মানুষ তিনি। নবাব বাড়ির মেয়ের ভূমিকায় দর্শক আমাকে দেখতে পাবেন। চরিত্রের নাম ‘লায়লা’। দারুণ একটি ছবি এটি।

দীপংকর দীপন পরিচালিত ‘ঢাকা ২০৪০’ ছবিতে নুসরাতের সঙ্গী হয়েছেন বাপ্পী। প্রথমবার বাপ্পীর সাথে জুটে বেঁধে কাজ করছেন, কেমন লাগছে? জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রথমবার বাপ্পীর বিপরীতে অভিনয় করছি। ও খুব কাজের ছেলে। অভিনয়ে ভিতরে থাকলে সে অভিনয়ের মধ্যেই থাকে। খুব হেল্পফুল একজন অভিনেতা। তার সাথে কাজ করে বেশ ভালো লাগছে।

এ ছবিতে আপনার চরিত্র কী? জানতে চাইলে ফারিয়া বলেন, চরিত্রের বিস্তারিত না বললেও শুধু এতটুকু বলবো যে এ ছবিতে আমি গবেষক হয়ে দর্শকের সামনে আসছি।

নতুন কাজ নিয়ে ফারিয়া বলেন, বেশকিছু কাজের অফার আসে। কিন্তু গল্পের সাথে চরিত্রের মিল না হওয়ায় কাজ করা হচ্ছে না। অবশ্য এখন ‘ঢাকা ২০৪০’ সিনেমায় কাজ করছি। এর গল্প চরিত্র আমার ভালো লাগায় কাজটি করছি।

বর্তমানে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি সংকটপন্ন অবস্থায়, এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণের উপায় কী ভাবে করা সম্ভব? ফারিয়া বলেন, পৃথীবির সবদেশের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির একটা বাজে সময় আসে। সেসময়টা কেটেও ওঠে। আমাদের ইন্ডাস্ট্রির সময়টা এখন খারাপ যাচ্ছে। তবে এর মধ্যেও আমাদের সিনেমার অবস্থা এখন ভালো হচ্ছে। অনেক ভালো ভালো সিনেমা তৈরি হচ্ছে। এছাড়াও এখন নির্মাতারা বেশ ভালোভালো সিনেমা নির্মাণ করছেন। সিনেমার প্রযোজকের পাশাপাশি ভালো গল্পের সিনেমা নির্মাণ, আমাদের দেশের হলগুলো আধুনিকায়নের মাধ্যমে দেশের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির পরিবর্তন হবে।