Main Menu

বাগমারায় সালেহা-ইমারত ফাউন্ডেশন কর্তৃক কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান

রাজশাহীর বাগমারায় সালেহা-ইমারত ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গতকাল শনিবার ২০১৯ সালের জিপিএ-৫ প্রাপ্ত এসএসসি, দাখিল ও সমমানের কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। সাঁকোয়া গ্রামের সালেহা-ইমারত কোল্ড স্টোরেজ প্রাঙ্গনে এ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সালেহা-ইমারত ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোহা. মোকবুল হোসেন। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ এখন বিশ্ব দরবারে মাথা উচু করে দাড়িয়েছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ এমন কোন দিক নেই যেখানে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশকে স্বাধীন করার মধ্য দিয়ে সকল অন্যায় অবিচার আর নিপিড়নের হাত থেকে বাঙ্গালী জাতিকে মুক্ত করেছেন। তিনি বলেন, রাজশাহী একটি শিক্ষা নগরী। আর এই শিক্ষা নগরীর বাগমারা উপজেলা এখন শিক্ষা অঞ্চলে পরিনত হয়েছে ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এমপির কারনে। তিনি আরো বলেন, এক যুগেরও বেশি সময় ধরে বিভিন্ন পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান করে লেখাপড়ায় আগ্রহ সৃষ্টি করায় সালেহা-ইমারত ফাউন্ডেশন একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে।

শনিবার সকালে রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার শিকদারীস্থ সালেহা ইমারত কোল্ড স্টোরেজ মিলনায়তনে সালেহা ইমারত ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ২০১৯ সালে এসএসসি, দাখিল ও কারিগরি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত উপজেলার ৬ শত ২৬ জন শিক্ষার্থীর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে বাগমারা আসনের সংসদ সদস্য ও সালেহা ইমারত ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক বলেছেন, ভাল লেখাপড়া করে দেশ ও দশের কল্যাণে কাজ করা প্রতিটি শিক্ষার্থীর মূখ্য উদ্দেশ্য হওয়া উচিত। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন কোন শিক্ষার্থী যেন মাদকে স্পর্শ করতে না পারে। একটি জাতির সুন্দর ভবিষ্যৎ ধ্বংস করতে মাদকই যথেষ্ট। তাই মাদক থেকে নিজে ও অপরকে দূরে রাখতে হবে। লেখাপড়া শিখে পিতা-মাতাকে ভুলে গেলে চলবে না। তাদেরকে ভালো ভাবে দেখাশোনা করা প্রতিটি শিক্ষার্থীর কর্তব্য। উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ গোলাম সারওয়ার আবুলের পরিচালানয় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকিউল ইসলাম, জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি বাগমারা উপজেলা চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার, বাগমারা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান, শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মচমইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হাসিবুল হক শান্ত, সৈয়দা ময়েজ উদ্দীন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শিমলা আক্তার তৃষ্ণা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের উপ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক জাহেদুর রহিম, উপজেলা আ’লীগের সহ সভাপতি আফতাব উদ্দীন আবুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিরাজ উদ্দীন সুরুজ, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হোসেন মাস্টার, সহ-দপ্তর সম্পাদক নুরুল ইসলাম, সহ-প্রচার সম্পাদক ফরহাদ হোসেন মজনু, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দীন, শিক্ষা ও মানব সম্পাদক বিষয়ক সম্পাদক মোল্লাহ এম আলতাফ হোসেন, কার্যকরী কমিটির সদস্য আলী হাসান, অধ্যক্ষ হাতেম আলী, আব্দুল বারী, ওমর আলী, আকবর আলী, বকুল খরাদী, সাবেক চেয়ারম্যান মাস্টার লুৎফর রহমান, চেয়ারম্যান আজাহারুল হক, আনোয়ার হোসেন, আসলাম আলী আসকান, আব্দুল হাকিম প্রাং, আব্দুল হামিদ ফৌজদার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ, মমতাজ আক্তার বেবী, জেলা আ’লীগের সদস্য জাহানারা বেগম সহ আ’লীগ ও অংগ সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান শেষে উপজেলার ৩টি সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মচমইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়, হাট-গাঙ্গোপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় এবং ভবানীগঞ্জ ইসলামীয়া ফাযিল মাদ্রাসার প্রধানের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট ও চেক প্রদান করা হয়।