Main Menu

মাশরাফি শ্রীলঙ্কায় খেলছেন

হ্যামস্ট্রিংয়ের ইনজুরি নিয়েই বিশ্বকাপে খেলেছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। তাই দেশে ফেরার পর গুঞ্জন ছিল শ্রীলঙ্কা সিরিজে বিশ্রামে থাকতে পারেন বাংলাদেশের অধিনায়ক। তবে গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে শ্রীলঙ্কা সিরিজে যাচ্ছেন তিনি। মাশরাফির ঘনিষ্ঠ এক সূত্রে এমনটাই জানা গেছে। এছাড়া একই ইঙ্গিত দিয়েছেন বাংলাদেশ দলের অন্যতম নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমনও।

আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই ঘোষণা করা হবে শ্রীলঙ্কা সিরিজের বাংলাদেশ জাতীয় দল। এর মধ্যে দল অনেকটাই গুছিয়ে এনেছেন নির্বাচকরা। তবে তার আগে মাশরাফিকে ফিটনেস টেস্টের মধ্য দিয়ে যেতে হবে বলেই জানালেন প্রধান নির্বাচক, ‘আমার মনে হয় সে ফিট। তার ফিটনেসটা অনেকটাই তার নিজের ওপরে নির্ভর করে। একটা ফিটনেস টেস্ট দিতে তো হবে। কারণ একটু দুশ্চিন্তা তো অবশ্যই আছে। কারণ ও কিন্তু ইনজুরি নিয়েই বিশ্বকাপ খেলেছিল। একটু সময় পেয়েছে সেরে ওঠার। আশা করছি, শ্রীলঙ্কা সফরের আগে সুস্থ হয়ে যাবে। কারণ সে খেলবে না, এমন কিছু আমাদের কাছে আসে নাই।’

শুধু অধিনায়কই নয়, গোটা বিশ্বকাপ স্কোয়াডই ছিল চোটজর্জর। তাদের নিয়েও কিছুটা দুশ্চিন্তা রয়েই গেছে এখনও। দল চূড়ান্ত করার আগে বিশ্বকাপে খেলে আসা ক্রিকেটারদের চোট নিয়ে রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করছেন নির্বাচকরা, ‘দলে কয়েকজনের চোট সমস্যা আছে। মাহমুদউল্লাহ, মুশফিকুর রহিমের চোট নিয়ে রিপোর্টের অপেক্ষায় আছি। ওরা কিছু দিন বিশ্রাম পেয়েছে। আশা করি ওদের খেলতে কোনো সমস্যা হবে না।’

তবে শ্রীলঙ্কা সিরিজে থাকছেন না লিটন কুমার দাস। বিশ্বকাপে দুর্দান্ত ছন্দে থাকা সাকিব আল হাসানের থাকাও নিশ্চিত নয় বলেই জানালেন বাশার, ‘এটা নিয়ে আমরা বসেছিলাম। তাদের বিকল্প কাকে নেওয়া যায়। লিটন ছুটি চেয়েছে। বিয়ে করছে। আর সাকিব সম্ভবত আগেই ছুটি নিয়েছিল। সেটাও আমরা নিশ্চিত হইনি। আমাদেরকে দুইটা বিকল্পই রাখতে বলা হয়েছে। সেভাবেই চিন্তা-ভাবনা করছি। এখনও ফাইনাল রিপোর্ট পাইনি। লিটনেরটা জানি ছুটি নিয়েছে, সাকিবেরটা এখনও জানি না, পারবে কি পারবে না।’

বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরে বিশ্রামে রয়েছেন ক্রিকেটাররা। মাশরাফি ছাড়াও বেশ কিছু খেলোয়াড়ের ইনজুরি নিয়ে দুশ্চিন্তা রয়েছে। তবে শ্রীলঙ্কা সফরে সবাইকে পাবেন বলে আশাবাদ প্রকাশ করলেন বাশার, ‘একটা লম্বা সফর করে এসেছে সবাই। একটু বিশ্রাম দরকার ছিল সবার। কয়েক জনের ইনজুরি নিয়ে দুশ্চিন্তা রয়েছে। সে রিপোর্ট অবশ্য পাইনি। তবে যতদূর জানি, সবাই মোটামুটি (খেলতে) পারবেন। এ সিরিজে নতুন করে শুরু করা দরকার আমাদের। আশা করছি সবাইকে সুস্থ পাব। তাহলে সেরা দল নিয়েই যেতে পারব আমরা।’

শ্রীলঙ্কার উদ্দেশে আগামী ২০ জুলাই দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ দল। এর আগে কোন ধরনের প্রস্তুতি ক্যাম্প হবে না দেশে। শ্রীলঙ্কায় পৌঁছে ২৩ জুলাই একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। আগামী ২৬ জুলাই মাঠে গড়াবে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডে। এরপর ২৮ ও ৩১ জুলাই বাকি দুটি ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ।