Main Menu

ইউএনএফপিএ-এর কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ-এর আস্থা প্রকল্পের বগুড়া জেলার কার্যক্রম পরিদর্শন

আকাশ বগুড়াঃ ১৩ ও ১৪ জুলাই ২০১৯ তারিখে ইউএনএফপিএ এর কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ ড. অশা টরকেলসন আস্থা প্রকল্পের মাধ্যমে নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে ও প্রতিকারে বগুড়া জেলায় মাঠ পর্যায়ে বাস্তবায়নাধীন বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। আস্থা প্রকল্পটি নেদারল্যান্ডস এম্বাসি’র অর্থায়নে; ইউএনএফপিএ এবং আইন ও সালিশ কেন্দ্রের সহযোগিতায় বগুড়া জেলায় মাঠ পর্যায়ে বাস্তবায়ন করছে গণ উন্নয়ন কেন্দ্র। এর অংশ হিসেবে ১৩ জুলাই ২০১৯ তারিখে বগুড়া সদর উপজেলার নিশিন্দারা ইউনিয়নের চাঁদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত নাটক ‘আলোর পথে’ পরিদর্শন করেন। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আজিজুর রহমান, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম বদিউজ্জামান, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সরকার, ইউএনএফপিএ এর আবু সাঈদ সুমন, টেকনিকাল অফিসার-জেন্ডার, আইন ও সালিশ কেন্দ্রর উর্ধ্বতন উপ-পরিচালক, ফাতেমা মাহমুদা, গণ উন্নয়ন কেন্দ্রের প্রধান নির্বাহী এম আবদুস সালাম। নাটক শেষে নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে সকলে শপথ গ্রহণ করেন।
এরপর সন্ধ্যায় মম ইন হোটেলে জেলা পর্যায়ের সরকারি ও বেসরকারী স্টেকহোল্ডারদের সাথে জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে ও প্রতিকারে করণীয় বিষয়ে মতবিনিময় সভায় ড. অশা টরকেলসন অংশ নেন।


১৪ জুলাই ২০১৯ সকালে ড. অশা টরকেলসন সদর থানায় নারী সহায়তা কেন্দ্র পরিদশন করেন। এরপর তিনি বগুড়া জেলা ও দায়রা জজ নরেশ চন্দ্র সরকার এর সাথে প্রকল্পের কার্যক্রম বিষয়ে আলোচনা করেন। আলোচনা শেষে তিনি কোর্টে আস্থা প্রকল্প পরিচালিত নারী সহায়তা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন এবং উপস্থিত সারভাইভারদের সাথে কথা বলেন এবং তারা সঠিকভাবে সেবা পাচ্ছেন কি না সে বিষয়ে জানতে চান। একই সাথে জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার ও সিনিয়র সহকারী জজ শরিফুল ইসলাম এর সাথে সাক্ষাৎ করেন।
এরপর ড. অশা টরকেলসন নন্দীগ্রাম উপজেলার ইউসুফপুর গ্রামে আস্থা প্রকল্পের কেস ওর্য়াকার দ্বারা পরিচালিত উঠান বৈঠক পরিদর্শন করেন এবং উপস্থিত অংশগ্রহণকারীদের নিকট নারী নির্যাতন প্রতিরোধে কী ধরণের কার্যক্রম ও সহযোগিতা প্রয়োজন সে বিষয়ে কথা বলেন। দুদিনের সফরে তিনি আস্থা প্রকল্পের কার্যক্রম পরিদর্শন করে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, আস্থা প্রকল্প নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে এবং প্রয়োজনে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারী সেবা প্রাপ্তিতে সহযোগিতা করতে দৃঢ় ভূমিকা রাখবে।