Main Menu

সীমান্ত রক্ষার পাশাপাশি দেশগঠনেও ভূমিকা রাখছে বিজিবি’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা দেশের সীমান্ত রক্ষার পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায়ও সহায়তা প্রদান করছে। তিনি বলেন, এছাড়াও এ বাহিনীর সদস্যরা নির্বাচনকালীন দায়িত্ব পালন, সন্ত্রাস দমন, জনগণের জানমালের নিরাপত্তা বিধানসহ দেশগঠনমূলক কাজে প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে চলেছেন।
‘বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) দিবস-২০১৬’ উপলক্ষে এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন।
‘সীমান্তের অতন্দ্র প্রহরী’ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ২২১ বছরের একটি ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহ্বানে সাড়া দিয়ে এ বাহিনীর সদস্যগণ মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েন।
তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধে অসাধারণ বীরত্ব প্রদর্শনের জন্য এ বাহিনীর দু’জন সদস্য বীরশ্রেষ্ঠ উপাধিতে ভূষিত হয়েছেন। ১১৯ জন সদস্য পেয়েছেন মুক্তিযুদ্ধের অন্যান্য খেতাব। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধে এ বাহিনীর ৮১৭ জন অকুতোভয় সদস্য জীবন উৎসর্গ করেছেন।
জাতি বিজিবি’র এ আত্মত্যাগ সব সময়ই গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য কৃতিত্বের স্বীকৃতি স্বরূপ ২০০৮ সালে এ বাহিনী ‘স্বাধীনতা পদক’ লাভ করে। আওয়ামী লীগ সরকার ‘বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ’কে একটি আধুনিক বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলতে ‘বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ আইন-২০১০’ প্রণয়ন ও কার্যকর করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এর ফলে বিজিবি’র নতুন সাংগঠনিক কাঠামো ও জনবলের প্রাধিকার বৃদ্ধি, স্তর বিকেন্দ্রীকরণসহ পদবী কাঠামো পুনর্বিন্যাস করা হয়েছে। -বাসস।