Main Menu

ভাঙ্গুড়ায় অব্যবস্থা ও ভূতুরে ক্যাম্পাসে উপজেলা কাব ক্যাম্পুরি-২০১৬ শুরু

বুধবার পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার জরিনা-রহিম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে শুরু হয়েছে দু‘দিন ব্যাপি উপজেলা কাব ক্যাম্পুরি-২০১৬। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সংসদ সদস্য আলহাজ মোঃ মকবুল হোসেন, বিশেষ অতিথি উপজেলা চেয়ারম্যান নুর মুজাহিদ স্বপন,পৌরসভার মেয়র গোলাম হাসনাইন রাসেল,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানদ্বয় এবং সভাপতি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শামছুল আলম কেউই কাব ক্যাম্পুরির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আসেননি। এমনকি উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ ওসমান গনি ও সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার তারাও ক্যাম্পুরির এই অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত ছিলেন। ফলে নানা অব্যবস্থা,অযতœ ও অবহলার মধ্য দিয়ে শিশুদের এই সমাবেশ শুরু হয়। এছাড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসের গাফিলতির কারনে এক‘শ ২টি বিদ্যালয়ের মধ্যে মাত্র পাঁচটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৮টি দল এতে অংশ নিয়েছে। স্কুলগুলো হলো সারুটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,ভাঙ্গুড়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,শরৎনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,কলকতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও চৌবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

বুধবার সন্ধ্যায় ক্যাম্পুরিতে গিয়ে দেখা যায় সেখানে ভুতুরে অবস্থা বিরাজ করছে। বিদ্যালয়ের মাঠ ও বারান্দা কোথাও আলোর ব্যবস্থা নেই। অন্ধকারে শিশুরা ক্যাম্পিং করছে। কাবের প্রবীণ কোর্স পরিচালক আলহাজ মোঃ মহসীন আলী ক্ষীণ আলোর মধ্যে একটি কক্ষে ক্লাশ নিতে রীতিমত হিমসীম খাচ্ছেন। কোন টয়লেটে আলো নেই। উপরন্ত এখানে সাপের উপদ্রবের কথা শুনে ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা আতংকের মধ্যে অবস্থান করছে। কোর্স পরিচালক ও ঈশ্বরদীর সেরা কাব প্রশিক্ষক মহসীন আলী উপজেলা প্রশাসন ও আয়োজকদের ব্যবস্থাপনায় অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন যে,শতাধিক স্কুলের উপজেলা থেকে ক্য্ম্পুরিতে মাত্র পাঁচটি স্কুলের অংশ গ্রহণ কোনো ভাবেই মেনে নেয়া যায়না। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকেও কোন কর্মকর্তা ক্যাম্পুরি তদারকি না করায় এর অবস্থা হয়েছে হালবিহীন নৌকার মত। ফলে কাব শিশুদের নিরাপত্তা নিয়েও অভিভাবকরা উদ্বিঘœ ও উৎকণ্ঠার মধ্যে রয়েছেন। কাবের লিডার মোফাজ্জল হোসেন ও ডেপুটি লিডার আব্দুস সবুর বলেন প্রশাসন ও ভেন্যু কর্তৃপক্ষের প্রয়োজনীয় সহযোগিতার অভাবে ক্যাম্পুরি নিয়ে তাদের অনেক ক্ষোভ রয়েছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অন্যন্য শিক্ষকগণ বলেন ভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন স্কুল ও কলেজের অধিক নিরাপদ ও আলোকজ্জল ক্যাম্পাসের পরিবর্তে গার্লস স্কুলের ভূতুরে ক্যাম্পাস কাব শিশুদেরদের জন্য বরাদ্দ ন্যাক্কারজনক।

নৈতিক ভাঙ্গুড়ার উদ্ভাবক (ইউএনও মোঃ শামছুল আলম) এর কাছে কাব শিশুদের জিজ্ঞাসা ক্যাম্পুরিতে যোগ দেয়াই কি তাদের অপরাধ ? নইলে আনন্দ ও স্বতস্ফ’র্ততার পরিবর্তে নিরানন্দ ক্যম্পুরি কেন ? এছাড়া উপজেলার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের এই অনুষ্ঠানে যোগ না দেয়ারই বা হেতু কী ? যে উপজেলার শতাধিক প্রাইমারি স্কুলে নৈতিক শিক্ষা দেয়া হয়েছে সেখানে কাব দল গঠন করা হয়নি কেন ? এসব প্রশ্নের সদুত্তর দেয়ার কোন কর্তৃপক্ষ আদৌ আছে কিনা তা প্রশাসনের কাছে সবার জিজ্ঞাসা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শামছুল আলম কাব ক্যাম্পুরির অব্যবস্থাপনায় গভীর দুঃখ প্রকাশ করে বলেন তিনি সরকারি কাজে দুইদিন ভাঙ্গুড়ার বাইরে থাকায় নজর দিতে পারেননি তবে কাব শিশুদের মাঝে আনন্দ ও স্বতস্ফ’র্ত ফিরিয়ে আনতে বৃহস্পতিবার তিনি সবকিছু করবেন।।