মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদ আজ। একমাস রোজা রাখার পর বাংলাদেশের মুসলমানরা। এবারের ঈদ বাংলাদেশের মুসলমানদের জন্য অন্য ঈদের চেয়ে আলাদাই হচ্ছে। কারণ, তাদের ঈদের আনন্দের সঙ্গে রয়েছে মাত্র ৭ দিন আগে ঘটে যাওয়া এক দু:সহ শোক। ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় দেশি-বিদেশি ২০ প্রাণ ঝরে যাওয়ার শোক।
তবুও বছরে দুটি ঈদে ছুটি পাওয়া এবং স্বজনদের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ হাতছাড়া করতে চাননি কেউ। তাই প্রায় অর্ধকোটি লোক ঢাকা ত্যাগ করে ঈদের আনন্দ স্বজনদের সঙ্গে ভাগ করে নিতে গ্রামে গেছেন।
দেশের কয়েক কোটি মুসলমান বৃহস্পতিবার সকালে ঈদগাহে কিংবা মসজিদে ঈদের নামাজ পড়বেন।
এবারের ঈদের গুলশান হামলার কথা মাথায় রেখে প্রতিটি ঈদগাহ, মসজিদ ও বিনোদন কেন্দ্রে থাকছে নিরাপত্তার কড়াকড়ি। বরাবরের মতো এবারও রাজধানীতে ঈদের প্রধান জামাত হবে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে, সকাল সাড়ে ৮টায়।
এছাড়া সকাল ৭টা থেকে এক ঘণ্টা পরপর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে হবে ঈদের পাঁচটি জামাত। আবহাওয়া প্রতিকূল হলে সকাল ৯টায় বায়তুল মোকাররমের জামাতই ঈদের প্রধান জামাত হবে।
রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, সুপ্রিম কোর্টের  বিচারপতি, মন্ত্রিসভার সদস্য, সংসদ সদস্য, রাজনীতিবিদসহ সব শ্রেণি পেশার মানুষ জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের প্রধান জামাতে অংশ নেবেন।
প্রতিবারের মতো এবারও দেশের বৃহত্তম ঈদ জামাত হবে কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে। ঈদের দিন সকাল ১০টায় এই জামাত পরিচালনা করবেন মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ।
আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে বৃহস্পতিবার আষাঢ়ের ২২তম এই দিনে দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি মাত্রার বৃষ্টি হতে পারে।
রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ সকাল ১০টায় বঙ্গভবনে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকাল সাড়ে ৯টা সাড়ে ১১টা পর্যলন্ত সর্বস্তরের নাগরিক, সংস্কৃতিক কর্মী পেশাজীবী কূটনীতিকদের সঙ্গে গণভবনে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।
দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, “ঈদ মুসলমানদের জন্য এক আনন্দঘন দিন। এ আনন্দ ছড়িয়ে পড়ে সবার মাঝে, সারা বাংলায়। ঈদুল ফিতরের শিক্ষা সকলের মাঝে ছড়িয়ে পড়ুক, গড়ে উঠুক ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও শোষণমুক্ত সমৃদ্ধ সমাজ-এ প্রত্যাশা করি।”
জাতিকে ‘ঈদ মোবারক’ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে বলেন, “মাসব্যাপী সিয়াম সাধনার পর সকলের জন্য আনন্দের বার্তা নিয়ে এসেছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদ শান্তি, সহমর্মিতা ও ভ্রাতৃত্ববোধের অনুপম শিক্ষা দেয়। হিংসা ও হানাহানি ভুলে মানুষ সাম্য, মৈত্রী ও সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ  হয়। ”
ঈদ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দেশের বিভিন্ন সরকারি হাসপাতাল, কারাগার, শিশু পরিবার, ছোটমনি নিবাস, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, সরকারি আশ্রয় কেন্দ্র, শিশু বিকাশ কেন্দ্র, সেফ হোমস, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র ও দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্রে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে।
বাংলাদেশ বেতার, বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেসরকারি টেলিভিশনগুলো ঈদের আগে-পরে কয়েক দিন ধরে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করছে। সংবাদপত্রগুলো সোমবার প্রকাশ করেছে ঈদের বিশেষ ক্রোড়পত্র।
ঈদ জামাত সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্ন করতে সারা দেশে এবার জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা গঠন করেছেন স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী।
Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author