মিনা ট্রাজেডি: নিহত বাংলাদেশির সংখ্যা বেড়ে ৫৮
সৌদি আরবের মিনায় পদদলিত হয়ে নিহত বাংলাদেশি হাজির সংখ্যা ৫৮ তে দাঁড়িয়েছে। মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা।
মঙ্গলবার সাংবাদিক সম্মেলন এবং গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ ৫১ জন বাংলাদেশি হাজির মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছিলেন। গত দুদিনে আরও ৭ জন বাংলাদেশি হাজি নিহত হওয়ার তথ্য পাওয়া গেছে।
বুধবার পররাষ্ট্র দপ্তরের এক কর্মকর্তা জানান, প্রতিদিনই একাধিক মৃত্যুর খবর আসছে। বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ থেকে এখন আর কোন তথ্য সরবরাহ করা হবে না। প্রতিদিনই সৌদি আরবস্থ বাংলাদেশ হজ অফিস থেকে হতাহতের সর্বশেষ তথ্য নিয়ে বুলেটিন প্রকাশ হচ্ছে। সেখানে নিহতের তালিকা আপডেট হচ্ছে। ধর্ম ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে হজ অফিস নিয়মিত রিপোর্ট পাঠাচ্ছে।
রিয়াদস্থ বাংলাদেশ মিশন এবং সৌদি আরবে বাংলাদেশের বিভিন্ন হজ অফিসের দেয়া তথ্য মতে, এখনও ৬৩ বাংলাদেশি হাজিকে মক্কা ও জেদ্দার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিত্সা দেয়া হচ্ছে। তাদের মধ্যে বেশির ভাগই রয়েছেন নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ)। সুস্থ হলেই তাদেরকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনা হবে। নিহত কয়েজন হাজির মরদেহ চিহ্নিত করে তাদের আত্মীয়স্বজনের মাধ্যমে মক্কাতেই দাফন করা হচ্ছে। কনস্যুলেট ও মক্কায় বাংলাদেশ হজ মিশনের কর্মকর্তারা বাকি মরদেহগুলোর পরিচয় নিশ্চিত করতে কাজ করছেন।
এদিকে এখনো নিখোঁজ রয়েছেন ১৪০ জন বাংলাদেশি। নিখোঁজ হাজিদের স্বজনদের মক্কায় বাংলাদেশ হজ মিশনে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। একই সাথে মৃতদেহ শনাক্ত করতে সহায়তার জন্য মিশনে অফিসের ১০৭ নম্বর কক্ষে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।
গত ২৪ সেপ্টেম্বর স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১১টার দিকে মুজদালিফা থেকে শয়তানের উদ্দেশে পাথর নিক্ষেপের জন্য মিনায় যাওয়ার সময় হুড়োহুড়িতে পদদলিত হয়ে কয়েক হাজার হাজির হতাহতের ঘটনা ঘটে। ইতিমধ্যে নিহত এক হাজার ১০০ হাজির ছবি প্রকাশ করে সৌদি আরব। তবে সেই সংখ্যাও প্রতিনিয়ত বাড়ছে। সর্বশেষ ১২০৭জন হাজি নিহতের তথ্য পাওয়া গেছে।
Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author