বাঁশের মাচালে কতদিন পার হবে সাঁথিয়ার গ্রামবাসী

আবু ইসহাক, সাঁথিয়াঃ
পাবনার সাঁথিয়া উপজেলাধীন ইছামতি নদীর খানমামুদপুর-নন্দনপুর ঘাটে নির্মিত বাঁশের মাচাল দিয়ে আর কতদিন পার হতে হবে এলাকাকাসীর।
এলকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সাঁথিয়া উপজেলাধীন ইছামতি নদীর খানমামুদপুর-নন্দনপুর ঘাটে এক সময় নৌকা দিয়ে খানমামুদপুর, ধোপাদহ, তেতুলিয়া, নন্দনপুর, স্বরপ, পোরাটসহ ১০/১২টি গ্রামের লোকজন অতিকষ্টে খেয়া নৌকায় প্রতিদিন পারাপার হতো। পারাপারে অনেক সময় খেয়া নৌকা ডুবে যেত। গ্রামবাসি অতিকষ্টে পারাপার হলেও স্কুল-কলেজ পড়–য়া ছাত্র/ছাত্রীদের পড়তে হতো চরম বিপাকে। এলাকাবাসি ও ছাত্র/ছাত্রীদের ভোগান্তি দুরীকরণে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এ্যাড. শামসুল হক টুকু এমপি ওই ঘাটে সরকারী ও এলাকাবাসির সহযোগিতায় তিন বছর আগে একটি বাঁশের মাচাল নির্মাণ করে দেন। তিনি বাঁশের মাচাল নির্মাণকালে এলাকাবাসিকে আশ্বস্ত করে বলেছিলেন, পরবর্তিতে একটি ব্রীজ করে দেয়া হবে। বাঁেশর মাচালটি প্রতি বছরই ভেঙ্গে যায়। এতে লোকজনকে হাড়ি-চাঁদা তুলে মাচালটি মেরামত করতে হয়। এলাকাবাসির প্রাণের দাবি দ্রুত সময়ের মধ্যে উক্তস্থানে একটি ব্রীজ নির্মাণ।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author