পাবনার ঐহিতহাসিক মালিগাছা রণাঙ্গনে স্মৃতিচারন সভা অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টারঃ পাবনা সদর উপজেলার ৬ কিলোমিটার দূরবর্তী পাবনা ঈশ্বরদী মহাসড়ক সংলগ্ন পাবনার ঐতিহাসিক মালিগাছা রণাঙ্গনে ২৯মার্চ বিকেল ৫টায় মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারন সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্তিত ছিলেন, পাবনা পুলিশ সুপারের প্রতিনিধি হিসেবে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পাবনা জেলা ইউনিটের ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল বাতেন, পাবনা সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান শাওয়াল বিশ্বাস, পাবনা সদর উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবুল কাশেম বিশ্বাস, আটঘরিয়া উপজেলা কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা জহুরুল হক, রানা গ্রুপ এর চেয়ারম্যান ও তরুণ সমাজ সেবক রুহুল আমিন বিশ্বাস রানা, মালিগাছা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শরিফ এবং মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মালিগাছা ইউনিয়নের কমান্ডার রণাঙ্গনের সহযোদ্ধা বীর মুক্তিযোদ্ধা হারেজ আলী।
স্মৃতিচারন সভায় সভাপতিত্ব করেন মালিগাছা ইউনিয়ন মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি মালিগাছা রণাঙ্গনের সহযোদ্ধা বীরমুক্তিযোদ্ধা এবাদত আলী। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন, দৈনিক সিনসার নির্বাহী সম্পাদক আলহাজ্ব কবি আমিনুর রহমান খান। এরপর মালিগাছা রণাঙ্গন সহ ১৯৭১ সালের মহান শহীদদের এবং জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তার পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে ১ মিনিট দাড়ীয়ে নিরবতা পালন করা হয়। এ সময় অতিথিবৃন্দকে রজনীগন্ধার স্টীক দিয়ে ফুলের শুভেচ্ছা জানান, মালিগাছা ইউনিয়ন মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল জব্বার। এরপর শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, মালিগাছা ইউনিয়ন মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সাধারন সম্পাদক, রণাঙ্গনের সহযোদ্ধা বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুল জব্বার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি ছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, মালিগাছা ইউনিয়ন মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সহ-সভাপতি রণাঙ্গনের সহযোদ্ধা সাংবাদিক ও নাট্যকার এইচ.কে.এম আবু বকর সিদ্দিক, রণাঙ্গনের সহযোদ্ধা, স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সদস্য ও জাতীয় শ্রমিক লীগের পাবনা জেলা কমিটির সভাপতি ফোরকান আলী এবং স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সদস্য স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা আবুল হোসেন। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ পাবনা জেলা ইউনিট কমান্ডের কোষাধ্যক্ষ, আলহাজ্ব মোঃ আতাউর রহমান আফতাবসহ অন্যান্য বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ এবং পাবনার বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ।
স্মৃতি চারন সভায় বক্তব্যদান কালে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম বিশ্বাস বলেন, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে দেশের সকল শ্রেণি ও পেশার মানুষের সামনে দাঁড়িয়ে পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা যুদ্ধ করেছেন। অনেক পুলিশ সদস্য স্বাধীনতা যুদ্ধে শহিদ হয়েছেন। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ পাকিস্তানি শত্রুসেনারা ঢাকাসহ সারাদেশে গণহত্যা চালালে রাজধানী ঢাকার রাজারবাগের হেডকোয়ার্ট থেকে প্রথম গুলি ছোড়েন পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা। এরপর স্মৃতিচারন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথিবৃন্দ বলেন, পাবনার ঐতিহাসিক মালিগাছা রণাঙ্গনের স্মৃতিকে দেশের তরুণ প্রজন্মের কাছে স্বরণীয় করে রাখার জন্য মালিগাছা রণাঙ্গনে একটি মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি নির্মান অবিত জরুরী।
মালিগাছা ইউনিয়ন মুক্তিযুদ্ধ সংরক্ষন পরিষদের নেতৃবৃন্দ মালিগাছা রণাঙ্গনে যাঁরা শহিদ হয়েছেন, তাঁদের শহিদ পরিবার হিসেবে স্বীকৃতি প্রদান এবং এ রণাঙ্গনে যাঁরা জীবন বাজি রেখে সহঙেযাদ্ধা হিসেবে প্রতিরোধযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন তাদেরকে মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় অর্ন্তভূক্ত করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবি জনান। অনুষ্ঠান শেষে সন্ধ্যায় রণাঙ্গণ প্রাঙ্গণে জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচিত্র প্রদর্শন করা হয়। এ দিন সকাল ৭টায় মালিগাছা রণাঙ্গণ প্রাঙ্গণে অস্থায়ী বেদীতে পূষ্পার্ঘ অর্পন করা হয়। এ সময় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন, মালিগাছা ইউনিয়ন মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি বীরমুক্তিযুদ্ধা এবাদত আলী এবং মুক্তিযোদ্ধা সংগঠনের পতাকা উত্তোলন করেন, বীরমুক্তিযোদ্ধা ময়েন উদ্দিন। এরপর নেতৃবৃন্দ মটর সাইকেল যোগে আটঘরিয়া উপজেলার দেবোত্তর বাজারে যান। উপস্থিত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও রণাঙ্গণের সহযোদ্ধারা দেবোত্তর বাজার সংলগ্ন জামে মসজিদের পাশে মালিগাছা রণাঙ্গণে শহিদ আটঘরিয়া থানা পুলিশের এএআই আবদুল জলিলের কবর জিয়ারত করেন।
অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে ২৯ মার্চ পাকিস্তানি শত্রুসেনার গুলিতে শহিদ গহের মন্ডরের বিধবা স্ত্রী গুলজান বেওয়া এবং মালিগাছা রণাঙ্গণে শহিদ পাবনা শহরের রাধানগর মক্তবপাড়া মহল্লার আহসান আলীর ছোট ভাই সিরাজুল ইলসামসহ রণাঙ্গণে ঘরনাগড়া গ্রামের (যুদ্ধাহত) আকমল হোসেনের বড় ছেলে আবদুল বারিক কে সম্মাননা হিসেবে শাড়ী ও পাঞ্জাবী তুলেদেন, পাবনা পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির পিপিএম এর প্রতিনিধি অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ নিয়ন্ত্রণ) গৌতম কুমার বিশ্বাস। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন, ইন্টারন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস্ ক্রাইম রিপোর্টার্স ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক সাইফুল ইসলাম শুভ।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author