প্রধান সূচি

মৌলভীবাজারে যৌথ অভিযানে ৩ অপহরণকারী আটক ! গভীর জঙ্গল থেকে এক ব্যাবসায়ীকে উদ্ধার

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার ঃ মৌলভীবাজারে জেলা পুলিশ, ডিবি ও র‌্যাবের যৌথ অভিযানে অপহরণের ৫৫ ঘন্টার মধ্যে গভীর জঙ্গল থেকে এক ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ২অপহরণকারী ও মূল পরিকল্পনাকারীসহ মোট ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। আটকৃতরা হলো চন্ডিনগর গ্রামের ইব্রাহিম আলীর পুত্র ইসমাইল আহমেদ হারুন (১৯) বোবারতল (ষাটঘড়ি) এলাকার আব্দুল খালিক এর পুত্র জুলমান আহমেদ (৩২) ও মুল পরিকল্পনাকারী সবুজ হোসোন (৩০)। গত ৭ জুন দুপুরে পুলিশ সুপারের কনফারেন্স রুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া জানান- গত ৪ জুন সন্ধ্যা ৬ ঘটিকায় ব্যাবসায়ী শশাংক কুমার দত্ত তার নিজবাড়ী হতে সিলেট টিলাগড়স্থ ভাড়াটিয়া বাসার উদ্দেশ্যে বড়লেখা উত্তর চৌমহুনাস্থ পোষ্ট অফিসের সামনে থেকে একটি সিএনজি গাড়ী যোগে রওয়ানা করেন। শশাংক কুমার দত্ত বিয়ানীবাজার উপজেলার বারইগ্রামে সিএনজি পরিবর্তন করে সিলেট যাওয়ার উদ্দেশ্যে আরেকটি সিএনজি গাড়ীতে উঠেন। সিএনজি গাড়ী যোগে বারইগ্রাম হতে সিলেট যাওয়ার পথে সিলেটের বিয়ানীবাজার মোল্লাপুর রাস্তার সম্মূখে পৌঁছালে একটি মাইক্রোবাস তার সিএনজি গাড়ীটি গতিরোধ করে মাইক্রোবাসে তুলে জোরপূর্বক অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। অপহরণকারী চক্র শশাংক কুমার দত্তকে অজ্ঞাত স্থানে রেখে বিভিন্ন ভিওআইপি নাম্বার হতে তার ছোট ভাই সুবোধ কুমার দত্ত এর মোবাইলে ফোন করে মুক্তিপণ হিসেবে ৫০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে। ছোট ভাই এ বিষয়ে থানায় আইনগত সহায়তা চাওয়ার পরপরই তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে উদ্ধার অভিযানে নামে পুলিশ। দীর্ঘ ৫৫ ঘন্টার অভিযানে গভীর জঙ্গল থেকে গত ৭ জুন মধ্য রাত দেড় ঘটিকায় বড়লেখার বাহাদুরপুর চা-বাগানের গভীর জঙ্গল থেকে অক্ষত অবস্থায় ব্যবসায়ী শশাংক কুমার দত্ত (৫৮ কে উদ্ধার করা হয়। এবং ঘটনাস্থল থেকে ২ অপহরণকারী ও মূল পরিকল্পনাকারীসহ মোট ৩ জনকে আটক করা হয়। ৫৫ ঘন্টার অভিযানে উপস্থিত ছিলেন- কুলাউড়া সার্কেলের অতিরিক্ত সিনিয়র পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) সাদেক কাউছার দস্তগীর, বড়লেখা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রতন চন্দ্র দেবনাথসহ বড়লেখা থানার অফিসার ফোর্স এবং জেলা গোয়েন্দা টিম ও র‌্যাবের একটি দল। সংবাদ সম্মেলনে আরও জানান, অপহৃত ব্যক্তিকে যে ঘরে আটক রাখা হয় তা কৌশলে সনাক্ত করে জেলা পুলিশ, ডিবি ও র‌্যাবের যৌথ টিম ঘরটিকে নিরাপদ দূরত্বে ঘিরে ফেললে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ভিকটিমকে সাথে নিয়ে অপহরকারী ৭/৮ জন বাহাদুরপুর চা-বাগানের গভীর জঙ্গলে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। যৌথ টিমের পর্যাপ্ত সদস্য থাকায় তাৎক্ষনিক অপহৃত ব্যক্তিকে উদ্ধার ও ২ জনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করা হয়। পুলিশ জানায়- এ ঘটনায় জড়িত অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতার, অপহরণ কাজে ব্যাবহৃত গাড়ী সনাক্ত করে আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত আছে।