প্রধান সূচি

ফেসবুক থেকে আয়ের অর্থ অসহায় অরুন দাশকে সহায়তা দিলেন মিজান

পাবনা প্রতিনিধি
পাবনার চাটমোহর উপজেলার অমৃতকুন্ডা গ্রামের অরুন দাশ (৪৯)। একটি দূর্ঘটনায় এক হাত হারানোর পর আরেকটি হাত দিয়ে চালিয়ে যাচ্ছেন জীবন যুদ্ধ। গত ২৭ এপ্রিল তাকে নিয়ে একটি মানবিক ভিডিও তৈরী করে ফেসবুক পেজ ‘ভিলেজ লাইফ’ এ আপলোড করেছিলেন তার স্বত্ত¡াধিকারী মিজানুর রহমান মিজান।

সেই ভিডিও ব্যাপক ভিউ ও শেয়ার হওয়ায় কিছু টাকা আয় হয়। সেখান থেকে ৫ হাজার টাকা সহায়তা হিসেবে অরুন দাশকে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন মিজান। মঙ্গলবার (০৮ জুন) বিকেলে অমৃতকুন্ডা গ্রামে অরুন দাশের বাড়িতে গিয়ে তার হাতে সেই টাকা তুলে দেয়া হয়।

আর্থিক সহায়তা পেয়ে খুশি অরুন দাশ। বলেন, ৩টা মেয়ে, বউ আর মাকে নিয়ে খেয়ে না খেয়ে দিন কাটছে। এক হাত দিয়ে বাঁশ দিয়ে মুরগীর টোপা তৈরী করি। সেগুলো বিক্রি করে যা আসে তা দিয়ে তো সংসার চলে না। এই ছেলেটা আমাকে নিয়ে একদিন ভিডিও করেছিল। কিন্তু আজ টাকাগুলো পেয়ে আমার খুব উপকার হলো। এই টাকা দিয়ে বাঁশ কিনে ব্যবসাটা কিছুদিন চালাতে পারবো।

এ সময় চাটমোহর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল আলীম, খোঁজখবর ডটনেটের সম্পাদক শাহীন রহমান, চাটমোহর টিভির সম্পাদক এস এম মাসুদ রানা, ফেসবুক পেজ ভিলেজ লাইফ এর স্বত্ত¡াধিকারী মিজানুর রহমান মিজান, মুলগ্রাম ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরে আলম ছোটন, ইয়াসিন আলী বাবু উপস্থিত ছিলেন।

অনেকের ইউটিউবার চ্যানেল ও ফেসবুক পেজ আছে। কিন্তু সেখান থেকে আয় করা টাকা অসহায় মানুষকে দিয়েছেন এমন মানুষের সংখ্যা খুব বেশি নয়। তেমনি একজন ভিলেজ লাইফের স্বত্ত¡াধিকারী মিজানুর রহমান মিজান। তার এমন মানবিক কাজকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সবাই। মিজানের বাড়ি চাটমোহর উপজেলার মথুরাপুর ইউনিয়নের উথুলী গ্রামে।

এক প্রতিক্রিয়ায় মিজানুর রহমান মিজান বলেন, আসলে গ্রামের মানুষের জীবন যাপন নিয়ে কাজ করতে গিয়ে তাদের অসহায়ত্ব খুব কাছ থেকে দেখার সুযোগ হয়েছে। অনেক মানুষের অসহায়ত্ব মনকে ছুঁয়ে গেছে, কাঁদিয়েছে। সেখান থেকে মানবিক দিক বিবেচনা করে অরুন দাশকে সহযোগিতা করার জন্য ইচ্ছা ছিল। তাই আমার এই চেষ্টা।