প্রধান সূচি

৩ ম্যাচ নিষিদ্ধ সাকিব, জরিমানা ৫ লাখ

বঙ্গবন্ধু ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) সপ্তম রাউন্ডে আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে ম্যাচে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে অসন্তুষ্ট হয়ে স্টাম্প ভেঙে বিতর্কে জড়িয়েছেন সাকিব আল হাসান। এমন কাণ্ডের পর নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে কাছে ক্ষমা চেয়েছেন তিনি।

যদিও ক্ষমা চেয়ে পার পেলেন না দেশসেরা এই অলরাউন্ডার। মাঠে আম্পায়ারদের সঙ্গে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করায় তিন ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন সাকিব। সেই সঙ্গে ৫ লাখ টাকা আর্থিক জরিমানা করা হয়েছে তাঁকে। গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম) চেয়ারম্যান কাজী ইনাম।

ম্যাচের দুই আম্পায়ার ইমরান পারভেজ ও মাহফুজুর রহমান এবং ম্যাচ রেফারি মোরশেদুল আলমের রিপোর্টের ভিত্তিতে এই শাস্তি দিয়েছে সিসিডিএম। ঘটনাবহুল এই ম্যাচে আবাহনী লিমিটেডকে বৃষ্টি আইনে ৩১ রানের ব্যবধানে হারিয়েছিল মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব।

ঘটনাটি ঘটে আবাহনীর ব্যাটিং ইনিংসের পঞ্চম ওভারে। যেখানে নিজের প্রথম ওভার করতে এসে শেষ বলে আবাহনীর অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের বিপক্ষে এলবিডব্লিউয়ের আবেদন করেছিলেন সাকিব। তবে আম্পায়ার আউট না দেয়ায় লাথি মেরে স্টাম্প ভাঙেন তিনি। এরপর ষষ্ঠ ওভারের এক বল বাকি থাকতেই বৃষ্টির কারণে ম্যাচ বন্ধ করে দেয় আম্পায়াররা। সেই সময় বল করছিলেন শুভাগত হোম। পাওয়ার প্লের শেষ ওভারের প্রথম দুই বলে চার মারেন নাজমুল হোসেন শান্ত। তৃতীয় বল ডট হলেও পরের দুই বলে হয়েছে একটি করে রান।

ষষ্ঠ ওভার শেষ হওয়ার এক বল বাকি থাকতেই বৃষ্টির কারণে আম্পায়ারা খেলা বন্ধ করে দেয়ায় আবারও মেজাজ হারান তিনি। যা নিয়ে সাকিব আম্পায়ারদের সঙ্গে তর্ক করেন এবং তিন স্টাম্প উঠিয়ে আম্পায়ারের সামনে আছাড় মারেন।এরপর আম্পায়ারের দিকে তেড়েও যান। এরপর ড্রেসিং রুমে যাওয়ার পথে খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়ান।

বৃষ্টি আইনে আবাহনীর লক্ষ্য দাঁড়িয়েছিল ৯ ওভারে ৭৬। যদিও তাসকিন আহমেদ ও আবু জায়েদ রাহির বোলিং তোপে সেই লক্ষ্যের অনেক আগেই থামতে হয়েছে মুশফিকের দলকে। এর ফলে দীর্ঘ ৫ বছর পর আবাহনীকে হারানোর স্বাদ পেয়েছে মোহামেডান।