প্রধান সূচি

গার্ড অব অনারে ইউএনও নারী হলে বিকল্প চায় সংসদীয় কমিটি

কোথাও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নারী হলে সেক্ষেত্রে তার পরিবর্তে পুরুষ কর্মকর্তা দিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গার্ড অব অনার দেওয়ার সুপারিশ করেছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। রবিবার (১৩ জুন) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে এই সুপারিশ করা হয়। একই সঙ্গে গার্ড অব অনার প্রদান দিনের বেলায় আয়োজন করার জন্যও কমিটি সুপারিশ করেছে।

সংসদীয় কমিটির বৈঠক সম্পর্কিত সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘বৈঠকে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গার্ড অব অনার প্রদানের ক্ষেত্রে দিনের বেলায় আয়োজন করা এবং মহিলা ইউএনওর বিকল্প ব্যক্তি নির্ধারণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।’

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শাজাহান খান এ ব্যাপারে গণমাধ্যমকে জানান, বিভিন্ন স্থানে মহিলা ইউএনও গার্ড অব অনার দিতে গেলে স্থানীয় পর্যায়ে অনেকে সামাজিক প্রশ্ন তোলেন। যেহেতু নারীরা নামাজে জানাজায় অংশ নিতে পারেন না, সেজন্যই বিকল্প ভাবতে কমিটি সুপারিশ করেছে। কমিটির সদস্যরা বিকল্প হিসেবে একজন পুরুষ কর্মকর্তাকে দিয়ে গার্ড অব অনার দেওয়ার কথা বলেছেন। কমিটি সেটি পরীক্ষা করে দেখতে মন্ত্রণালয়কে পরামর্শ দিয়েছে।

সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী কোনো বীর মুক্তিযোদ্ধা মারা যাওয়ার পর তাকে রাষ্ট্রীয় সম্মান জানায় সংশ্লিষ্ট জেলা/উপজেলা প্রশাসন। ডিসি বা ইউএনও সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে সেখানে থাকেন। মরদেহের কফিনে সরকারের প্রতিনিধিত্বকারী কর্মকর্তা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

রবিবারের বৈঠকে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে জিয়া শিশুপার্কের স্থানে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণের সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। কমিটির সভাপতি জানান, সার্কিট হাউজের সামনের যে জায়গাটিতে পাকিস্তানি বাহিনী আত্মসমর্পণ করেছিল সেখানে জিয়াউর রহমান শিশুপার্ক করা হয়েছে। কমিটি সেখানে আত্মসমর্পণের স্মৃতি রক্ষার্থে একটি স্মৃতিস্তম্ভ স্থাপনের সুপারিশ করে। যে কক্ষটিতে জিয়াউর রহমানকে হত্যা করা হয়েছে সেটা আগের মতোই সংরক্ষিত থাকবে, শুধু শিশুপার্কের স্থলে স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণের পরামর্শ দিয়েছে কমিটি।

বৈঠকে কমিটি দ্রুত সময়ের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধাদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা সম্পন্ন করার পাশাপাশি রাজাকারদের তালিকা প্রকাশেরও সুপারিশ করেছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংজ্ঞা সংগ্রহ এবং চিহ্নিত রাজাকারের পরবর্তী প্রজন্মকে সরকারি চাকরি দেওয়ার ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক নীতিমালা অনুসরণের সুপারিশও করেছে সংসদীয় কমিটি।

শাজাহান খানের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম, রাজিউদ্দিন আহমেদ, ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল, মোছলেম উদ্দিন আহমদ ও কাজী ফিরোজ রশীদ অংশ নেন।