প্রধান সূচি

তাড়াশে সরকারি রাস্তা রক্ষার দাবীতে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে সরকারি রাস্তা রক্ষার দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন এলাকাবাসী। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সকালে উপজেলার তালম ইউনিয়নের চকদেবী রামপুর গ্রামের। বিক্ষোভ মিছিলে প্রায় শতাধিক মানুষ অংশগ্রহন করে রাস্তাটি দ্রুত রক্ষা ও সংস্কারের দাবী জানান।

জানা গেছে, তাড়াশ-রানীহাট আঞ্চলিক সড়ক থেকে চকবেদী রামপুর ও চৌড়া গ্রামে যাতায়তের জন্য এলজিডির অর্থায়নে ২ কিলো একটি শাখা রাস্তা নির্মাণ হয়। বহু প্রতিক্ষার রাস্তাটি হওয়ায় এলাকার হাজারও মানুষের কষ্ট লাগব হয়। কিন্তু ওই গ্রামের মৃত সোলাইমান আলীর ছেলে বাবু প্রাং, মৃত কেতাব আলীর ছেলে আবু সাইদ, মৃত ময়াজ উদ্দিনের ছেলে আজাহার আলী ও আরশেদ আলীর ছেলে রুবেল হোসেন গং সেই সড়কের পাশে কোন প্রকার পাড় ছাড়াই পুকুর খনন করে মাছ চাষ করেছেন। ফলে জনগুরুত্বপূর্ণ ওই পাকা রাস্তাটি ভেঙ্গে পুকুরে ধসে যাচ্ছে। বিষয়টি সমাধান চেয়ে গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে ওই পুকুর মালিকদের পাড় নির্মাণের কথা একাধিকবার বলেও কোন কাজ হয়নি। তাই অনেকটা বাধ্য হয়েই বিক্ষোভ করেন এলাকাবাসী।

চৌড়া গ্রামের আলহাজ¦ মো: নবির উদ্দিন প্রাং, এরশাদ আলী, আব্দুল মতিন, তোরাব আলী বলেন, অনেক প্রতিক্ষার পরে আমরা এ রাস্তাটি পেয়েছি। কিন্তু রাস্তার পাশে কোন প্রকার পাড় ছাড়াই পুকুর খনন করে মাছ চাষ করেছেন তারা। ফলে রাস্তাটি ধসে যাচ্ছে পুকুরে। আমরা সরকারের কাছে দাবী করছি রাস্তাটি রক্ষা ও সংস্কারের ব্যবস্থা নেওয়া জন্য। এছাড়াও বিক্ষোভ শেষে সরকারি উধ্ধতন কর্মকর্তাদের বরাবর লিখিত অভিযোগ প্রদান করবেন বলে জানিয়েছেন তারা।

রাস্তার পাশের একজন পুকুর মালিক বাবু প্রাং বলেন, পুকুরের পাড় ছিল কিন্তু ধসে গেছে। বৃষ্টির কারণে এখন পুকুরের পাড় দেওয়া সম্ভব নয়।

তালম ইউপি চেয়ারম্যান আব্বাস-উজ-জামান জানান, রাস্তা ধসে যাওয়ার বিষয়টি শুনেছি। চৌড়া গ্রামের ওই রাস্তাটি অতি গুরুপূর্ণ। রাস্তাটির রক্ষার জন্য আজ তারা বিক্ষোভ মিছিলও করেছে। বিষয়টি নিয়ে আমি ইউএনও স্যারের সাথে আলাপ করবো।

উপজেলা প্রকৌশলী মো. আবু সাইদ বলেন, অভিযোগ পেলে পরিপত্র অনুযায়ী অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: মেজবাউল করিম বলেন, রাস্তার পাশে পাড় না দিয়ে যদি কেউ পুকুর খনন করে এবং পুকুরের কারণে যদি রাস্তা নষ্ট হয় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।