প্রধান সূচি

অসাম্প্রদায়িক চেতনা আর বহুমাত্রিক গুনের অধিকারী ছিলেন অঞ্জন ভট্টাচার্য 

পাবনা প্রতিনিধি
প্রয়াত অঞ্জন ভট্টাচার্য ছিলেন অসাম্প্রদায়িক চেতনার মানবিক ও বহুমাত্রিক গুনের অধিকারী একজন মানুষ। সবার উপরে মানুষ সত্য এ কথা তিনি সবসময় বিশ্বাস করতেন। হোমিও চিকিৎসক হিসেবে ছিলেন সবার কাছে সুপরিচিত। তিনি তার চেম্বারে বিনা অর্থে অসংখ্য মানুষকে চিকিৎসাসেবা ও ওষুধ দিয়েছেন। পেশা নিয়ে কখনও বানিজ্য করেননি নীতিগতভাবে সৎ ও রুচীশীল মানুষ হিসেবে তার মতো কেউ নেই।
শুক্রবার (২৪ ডিসেম্বর) বিকেলে পাবনার চাটমোহর প্রেসক্লাবের আয়োজনে প্রেসক্লাব সদস্য প্রয়াত হোমিও চিকিৎসক অঞ্জন ভট্টাচার্যের স্মৃতিচারণ সভা ও বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বক্তারা।
সভায় বক্তারা বলেন, অঞ্জন ভট্টাচার্য সামাজিক ও প্রকৃতিপ্রেমি মানুষ ছিলেন। চাটমোহর প্রেসক্লাব ও বড়াল নদী রক্ষা আন্দোলনে তার অবদান কখনও ভোলার নয়। তিনি  সবসময় সবার সাথে হাসি মুখে কথা বলতেন। তিনি সবসময় বলতেন তাকে যেন বিছানায় পড়ে থাকতে না হয়। হাঁটতে হাঁটতে যেন তার মৃত্যু হয়। বলতেন তার মৃত্যুর পর বড়াল নদে জল আসবে। তাই হলো। তিনি হাঁটতে হাঁটতে মারা গেলেন। আর তার মৃত্যুর পর বড়াল নদীতে জল আসে।
চাটমোহর প্রেসক্লাবের সভাপতি রকিবুর রহমান টুকুনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সঞ্জিত সাহা কিংশুকের সঞ্চালায় সভায় বক্তব্য দেন, প্রয়াত অঞ্জন ভট্টাচার্যের সহধর্মিণী মালা ভট্টাচার্য, বড়াল রক্ষা আন্দোলনের সদস্য সচিব এস এম মিজানুর রহমান, জৈষ্ঠ সাংবাদিক করতোয়ার চাটমোহর প্রতিনিধি আব্দুল মান্নান পলাশ, একুশে টিভি ও মানবজমিনের পাবনা প্রতিনিধি রাজিউর রহমান রুমী, আমাদের বড়াল সম্পাদক  হেলালুর রহমান জুয়েল, প্রেসক্লাব সদস্য বিপ্লব আচার্য, শাহীন রহমান, এম এ জিন্নাহ।
সভায় প্রয়াত অঞ্জন ভট্টাচার্যের সহধর্মিণী মালা ভট্টাচার্য বলেন, তিনি আমার কাছে স্বর্গ ছিলেন। তাকে এভাবে হারাবো কখনও ভাবতে পারিনি। তিনি সৎ, সাহসী, ভাল মনের মানুষ ছিলেন।  তিনি সবার মাঝে বেঁচে থাকুন, স্বর্গবাসী হোন এই কামনা করি।
স্মৃতিচারণ সভা শেষে অঞ্জন ভট্টাচার্যসহ  চাটমোহর প্রেসক্লাবের প্রয়াত সকল সদস্যের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। পরে অঞ্জন ভট্টাচার্যের ছেলে অম্লান ভট্টাচার্য বিশেষ প্রার্থনা পরিচালনা করেন।
উল্লেখ্য, চলতি বছরের গত ০২ জুলাই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইহলোক ত্যাগ করেন চাটমোহরের বিশিষ্ট হোমিও চিকিৎসক ও চাটমোহর প্রেসক্লাবের সদস্য অঞ্জন ভট্টাচার্য।
#