প্রধান সূচি

জামায়াত নেতার ছেলে কৃষকলীগের সভাপতি!

সোহেল রানা,সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:
জামায়াত নেতার ছেলে মাসুম বিল্লাহ্কে সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা থানার ধুবিল ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় নেতা-কর্মীরা মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।
সলঙ্গায় থানা আওয়ামীলীগ কর্যালয়ে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় ৬১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির অনুমদন দেন থানা কৃষকলীগের সভাপতি আব্দুল হান্নান নান্নু,সাধারণ সম্পাদক আখতারুজ্জামান সাচ্চু।
মাসুম বিল্লাহ্ সলঙ্গা থানার ধুবিল ইউনিয়নের আমশড়া গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে। আব্দুল গফুর ধুবিল ইউনিয়ন পরিষদে জামায়তের সমর্থন নিয়ে নির্বাচন করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। মাসুম বিল্লাহ্ চাচা আব্দুস সামাদ জামায়াতের শিষ্য নেতা তিনি জামায়াতের রাজনীতির জন্য একাধিক বার জেল হাজাতে গেছেন।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে সলঙ্গার ধুবিল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের এক নেতা বলেন, একজন জামায়াত নেতার ছেলেকে ইউনিয়ন কৃষকলীগের সর্বোচ্চ পদে বসানো ঠিক হয়নি। কৃষকলীগের কিছু নেতাকে  ম্যানেজ করতে পারাটাই তাঁর বড় যোগ্যতা হিসেবে দেখা হয়েছে।
ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কয়েকজন কর্মী বলেন, স্থানীয় রাজনীতিতে মাসুম বিল্লাহ্ তেমন একটা সক্রিয় ছিলেন না। কিছুদিন ধরে সভা-সমাবেশ উপস্থিত হয়। এই সুবাদে পরিচিতি লাভ করেন।
কমিটি ঘোষনার সময় সলঙ্গা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব রায়হান গফুর,সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান লাভু,ধুবিল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মনিরুজ্জামান মাষ্টার,ঢাকার ভাটরা থানা কৃষকলীগের সভাপতি আমিনুল ইসলাম জাকির,সলঙ্গা থানা কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলে করিম রিপন,ফারুক আহমেদসহ আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
তবে নতুন কমিটির সাধারণ সম্পাদক সেলিম রেজা  বলেন,মাসুদ বিল্লাহ্ বা তার বাবা জামায়াতের রাজনীতির সাথে জরিত কিনা জানা নেই। তবে তার চাচা আব্দুস সামাদ জামায়াতের রাজনীতির সাথে জরিত বলে শুনেছি।
অভিযুক্ত কৃষকলীগের সভাপতি মাসুম বিল্লাহ্, আমি বা আবার বাবা জামায়াতের রাজনীতির সাথে জরিত না। এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, আমি এর আগে কোন পদে ছিলাম না। দল আমাকে নির্বাচিত করেছে।
সলঙ্গা থানা কৃষকলীগের সভাপতি আব্দুল হান্নান নান্নু বলেন, মাসুম বিল্লাহ্’র বাবা চাচারা এক সময় জামায়াতের রাজনীতির সাথে জরিত ছিল। মাসুম বিল্লাহ্ গত দুই-তিন বছর হল আওয়ামীগের রাজনীতির সাথে জরিত বিভিন্ন সময় মিছিল মিটিং এ অংশগ্রহণ করে আসছে। তাকে ধুবিল ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি নির্বাচিত করা হয়েছে।
সিরাজগঞ্জ জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জাম মনি জানান, জামায়াত নেতার  সন্তান বা জামায়াত পরিবারের সন্তান হয়ে থাকে সলঙ্গা থানা কৃষকলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের সাথে কথা বলে সাংগঠনিক  ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন সুইট বলেন, জামায়াত পরিবারের সন্তান কৃষকলীগের সভাপতি হয়েছে বিষটি আমার জানা নেই। তবে এমন ঘটনা ঘটে থাকলে যারা এমন কর্মকাণ্ড করেছে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।