প্রধান সূচি

মাধুরীর সেই স্বপ্ন আজও অধরা

একের পর এক হিট ছবি দিয়ে সাড়াজাগানো নায়িকা মাধুরী দীক্ষিত। ভক্ত হৃদয়ে তার বসবাস চিরকালের। অথচ এই নায়িকা নাকি অভিনেত্রী হতেই চাননি! সম্প্রতি এক সাক্ষাতে এমনটি জানিয়েছেন দুনিয়া সাড়াজাগানো এই নায়িকা। তবে কী হতে চেয়েছিলেন এই নায়িকা?

মাত্র ১৭ বছর বয়সে বলিউডে পা রাখেন মাধুরী। তাপস পালের বিপরীতে ‘অবোধ’ ছবি দিয়ে যাত্রা শুরু তিনি। সে ছবি চলেনি ঠিকই। কিন্তু নজর কাড়ে মাধুরীর অভিনয়। তারপর ‘তেজাব’! আর ফিরে তাকাতে হয়নি ‘এক দো তিন গার্লকে’। একে একে ‘রাম লখন’, ‘সাজন’, ‘খলনায়ক’, হাম আপকে হ্যায় কৌন’, ‘দিল তো পাগল হ্যায়’— মাধুরীর স্পর্শে সোনা ফলিয়েছে অজস্র বলিউড ছবি।তার পরেই আচমকা উধাও নায়িকা। আমেরিকার ব্যস্ত ডাক্তার শ্রীরাম নেনেকে বিয়ে করে বিদেশবাসিনী। এবং স্বামী-পুত্র নিয়ে ঘোরতর সংসারী। দুই ছেলে বড় হওয়ার পরে ফের একটু একটু করে বলিউডে ফিরে আসছেন সাড়াজাগানো অভিনেত্রী।সেই মাধুরীরই নাকি স্বপ্ন ছিল একেবারে আলাদা। অভিনয়ে আসতেই চাননি কোনও দিন। মাধুরীর নাকি ইচ্ছে ছিল, মাইক্রোবায়োলজি এবং প্যাথলজির দুনিয়াতেই পেশা-জীবন গড়ে তুলবেন। স্রেফ শখই নয়, সেই বিষয়ে পড়াশোনাও আছে নায়িকার। মাইক্রোবায়োলজিতে ডিগ্রি আছে মাধুরীর।এক সাক্ষাৎকারে নিজেই তা জানিয়ে তিনি বলেছেন, ‘খুব কম বয়সে আচমকাই অভিনয়ের সুযোগ আসে। কিন্তু প্রথম ছবির ব্যর্থতায় খানিকটা দমে গিয়েছিলাম। ভাবেছিলাম, সিদ্ধান্তটা কি ঠিক হল? তারপর মা বোঝায়, যাই করি না কেন, পরিশ্রম আর লেগে থাকা ভীষণ জরুরি। সেটাই মাথায় রেখেছি বরাবর। সাফল্যও আমায় হতাশ করেনি।’শুধু মাইক্রোবায়োলজিস্ট হওয়ার সেই স্বপ্নটাই অধরা রয়ে গেছে মাধুরীর!