প্রধান সূচি

কোভিড -১৯ টিকা কার্যক্রমের খানা পরিদর্শনের স্বেচ্ছাসেবকদের ওরিয়েন্টেশন কর্মসূচীতে – সিভিল সার্জন

স্টাফ রিপোর্টারঃ পাবনা সিভিল সার্জন ডা. মনিসর চৌধুরী বলেছেন, স্বাস্থ্য বিষয়ে সেবা দিতে গেলে অনেক ধর্য্য ও সহ্য ক্ষমতা থাকতে হবে। আপনারা সেবা নিতে গিয়ে ডাক্তারদের প্রতি বিরক্ত হয়ে অনেক সময় অশালিন আচরণ করে থাকেন। সে ক্ষেত্রে ডাক্তাররা ধর্য্য ও সহ্য ক্ষমতায় চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন। আজকের এই ওরিয়েন্টেশন শেষে আপনারা যখন মাঠে গিয়ে সেবা দিতে যাবেন তখন মাথা ঠান্ডা রেখে কাজ করতে হবে। নিজেকে এমন ভাবে উপস্থাপন করতে হবে যাতে কোন রকম বিশৃঙ্খলা না ঘটে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুন্দর কার্যক্রম সুষ্ঠ ভাবে সম্পন্ন হয় সে দিকে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। তিনি আরও জানান, কোভিড ভ্যাকসিন কার্যক্রমের অগ্রগতিতে বিশে^ বাংলাদেশ ৭ম স্থানে । পাবনা জেলায় ৭০ টি ইউনিয়নে ১১ শত ১০ জন স্বেচ্ছাসেবক কাজ করবে। স্বেচ্ছাসেবকগন নিজ নিজ এলাকায় বাড়ী বাড়ী গিয়ে দেখবেন কোভিড টিকা গ্রহণ করেন নাই এমন কে কে আছেন। এখনো যারা এ টিকা নেন নাই তাদের তালিকা পাওয়া মাত্র তাদেরকে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।
ইউএসএআইডি‘র অর্থায়নে ‘ মামনি প্রজেক্ট’ বাস্তবায়নের লক্ষে

গতকাল বেলা ১ টায় সুজানগর উপজেলার নাজিরগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের কক্ষে অনুষ্ঠিত কোভিড -১৯ টিকা কার্যক্রমের খানা পরিদর্শনের স্বেচ্ছাসেবকদের ওরিয়েন্টেশন কর্মসূচীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিঁনি উরোক্ত কথাগুলো বলেন।
স্বাস্থ্য বিভাগের জেলা সমন্বয়কারী আশীস মন্ডলের সঞ্চালনায় ওরিয়েন্টেশনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন নাজিরগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ মো. নাদের হোসেন এবং দৈনিক সিনসা সম্পাদক এস এম মাহবুব আলম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সুজানগর উপজেলার টি এইচ এ ডা. সানজিদা মুজিব,সহ-স্বাস্থ্য পরিদর্শক শামসুল আলম, আবু বকর মিয়া ও ফজলুর রহমান, স্বাস্থ্য সহকারী আব্দুল্লাহ আল মাসুদ প্রমুখ। ওরিয়েন্টেশনে ৭৫ জন স্বেচ্ছাসেবককে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। প্রশিক্ষণে ফ্যাসিলেটর ছিলেন সিমান্তিÍকের পক্ষে মো. লোকমান হোসেন।