প্রধান সূচি

বগুড়ায় ভ্রাম্যমান আদালতে ফিলিং স্টেশনসহ ২ খাদ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানে জরিমানা

বগুড়া: বগুড়ায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার উৎপাদন করায় এবং পেট্রল-ডিজেল ওজনে কম দেয়ায় পৃথক অভিযানে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুরে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) বগুড়া কার্যালয় থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপিতে এ তথ্য জানানো হয়।
জানা যায়, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও শাজাহানপুরের এসি ল্যান্ড (সহকারী কমিশনার-ভূমি) আশিক খান এর নেতৃত্বে বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলায় সোমবার বিকেল থেকে রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত চলা অভিযানে খাদ্য উৎপাদনকারী দুই প্রতিষ্ঠান ও এক ফিলিং স্টেশনকে জরিমানা করা হয়।
ভ্রাম্যমাণ আদালতে প্রসিকিউটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন বগুড়ার বিএসটিআই কার্যালয়ের পরিদর্শনকারী কর্মকর্তা (সিএম উইং)  প্রকৌশলী জুনায়েদ আহমেদ ও একই কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক (মেট্রোলজি উইং) মো. মিজানুর রহমান।
অভিযানে শাজাহানপুর উপজেলার জামাদারপুকুর এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে দই উৎপাদন ও বিক্রি করে আসছিল মেসার্স ‘ভাই ভাই দইঘর’। একই এলাকায় ‘মেসার্স পলক অটো মুড়ি মিল’ নামে আরেক প্রতিষ্ঠান উৎপাদন করে আসছিল মুড়ি। এ দুই প্রতিষ্ঠানেরই ছিল না বিএসটিআইয়ের গুণগত মান সনদ। এছাড়াও প্রতিষ্ঠান দুটিতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার উৎপাদন করা হচ্ছিল। অভিযানে দুই প্রতিষ্ঠানকে ৬০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়। এর মধ্যে দই উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানকে ১০ হাজার টাকা এবং মুড়ি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়। এছাড়াও আরেক অভিযানে একই উপজেলার নয়মাইল এলাকায় মেসার্স ফারহান ফিলিং স্টেশনকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। সেখানে পেট্রল-ডিজেল পরিমাপে কম দেয়া হচ্ছিল। প্রতি ১০ লিটার পেট্রোলে ১৬০ ও একই পরিমাণ ডিজেলে ৮০ মিলিমিটার কম পাওয়া যায়।
বিএসটিআই কর্মকর্তা প্রকৌশলী জুনায়েদ আহমেদ জানান, সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে ১দিনের ২টি প্রতিষ্ঠান ও ১টি ফিলিং স্টেশনে অভিযান পরিচালিত হয়েছে। জনস্বার্থে এ ধরণের অভিযান অব্যাহত থাকবে। অভিযানে এসময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।