প্রধান সূচি

বগুড়া মহিলা দলের নেত্রী রনির বিরুদ্ধে সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা

বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ার গাবতলীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটূক্তি করার অভিযোগে জেলা মহিলা দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুরাইয়া জেরিন রনির বিরুদ্ধে সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা করা হয়েছে।
সোমবার দুপুরে রাজশাহী সাইবার ট্রাইব্যুনালে এ মামলা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটির ১ নং সহসভাপতি ও নারুয়ামালা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল গফুর।
বিষয়টি নিশ্চিত করে রাজশাহী সাইবার ট্রাইব্যুনালের অ্যাডভোকেট এস এম জাতিউল ইসলাম শাফি জানান, ট্রাইব্যুনালের বিচারক জিয়াউর রহমানের আদালতে সুরাইয়া জেরিন রনির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।
বাদী আবদুল গফুর সংবাদমাধ্যমকে জানান, প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি করার কারণে মহিলা দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুরাইয়া জেরিন রনির বিরুদ্ধে রাজশাহী সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেছেন তিনি এবং এই অপরাধের সুুষ্ঠু বিচার দাবি করেন তিনি।
এ বিষয়ে সুরাইয়া জেরিন রনি ও গাবতলী থানা বিএনপির সভাপতি মোর্শেদ মিল্টনের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তাদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।
এর আগে শনিবার (২৮ মে) রাতে একই অভিযোগে রনির বিরুদ্ধে গাবতলী মডেল থানায় এজাহার দাখিল করেছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সস্পাদক সুলতান মাহমুদ খান রনি।
তখন গাবতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল ইসলাম এজাহারটি জিডি আকারে গ্রহণ করে পরিদর্শক (তদন্ত) জামিরুল ইসলামকে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছিলেন।
উল্লেখ্য, গত রবিবার ২৯ মে সকাল সাড়ে ১১টায় জেলা মহিলা দলের নেত্রী রনির প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটূক্তির জের ধরে বগুড়ার গাবতলীতে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। উপজেলা পরিষদ থেকে আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল থানার পাশে গেলে এ সংঘর্ষ বাধে। পরে পুলিশ রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, গাবতলীতে শুক্রবার বিকেলে বিএনপির সম্মেলনে বগুড়া জেলা মহিলা দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুরাইয়া জেরিন রনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটূক্তি করে বক্তব্য দেন। এর প্রতিবাদে রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলা পরিষদের সামনে থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগ বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি থানার পাশে পৌঁছালে সেখানে রনির আত্মীয়স্বজন মিছিলে পাথর নিক্ষেপ করে।
এ কারণে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের মাঝে সংঘর্ষ বেধে যায়। পরে পুলিশ থানা থেকে বের হয়ে রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পরে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা পাল্টা রনির বাড়িতে ইট-পাথর নিক্ষেপ করন। এতে দুপক্ষের পাল্টাপাল্টি পাথর নিক্ষেপে এবং রাবার বুলেটে ১০ জন আহত হন।