প্রধান সূচি

ভাঙ্গুড়ায় পোড়ানো হলো ৫০ টি নিষিদ্ধ জাল

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি

জাতীয় মৎস্য উপলক্ষে পাবনার ভাঙ্গুড়ায় মৎস্য সম্পদ রক্ষায় অভিযান পরিচালনা করে প্রশাসন। আজ মঙ্গলবার দিন ব্যাপী এই অভিযানে চলনবিল অধ্যুষিত বিভিন্ন এলাকা থেকে অন্তত ৫০টি নিষিদ্ধ চায়না জাল উদ্ধার করে পোড়ানো হয়। অভিযানের নেতৃত্ব দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদ হাসান খান। মৎস অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি বর্ষা মৌসুমে চলনবিল অধ্যুষিত ভাঙ্গুড়া উপজেলার খানমরিচ, দিলপাশার ও অষ্টমনিষা ইউনিয়নের নদী, নালা ও খাল-বিলে নিষিদ্ধ চায়না জাল ব্যবহার করে মৎস্য সম্পদ ধ্বংস করছে অসাধু মৎস্যজীবীরা। এতে এই এলাকায় দিন দিন মাছের পোনা সহ মা মাছ কমে যাচ্ছে। এ অবস্থায় উপজেলা প্রশাসন বেশ কয়েকবার অভিযান পরিচালনা করে নিষিদ্ধ এই জাল ধ্বংস করে। তবে এরপরও অসাধু মৎস্যজীবীরা গোপনে তাদের কার্যক্রম চালাতে থাকে। এর ধারাবাহিকতায় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন মঙ্গলবার দিনব্যাপী উপজেলার নৌবাবাড়িয়া, চরভাঙ্গুড়া, পুঁইবিল, ছোটবিষাকোল, রুপসী গ্রাম সহ অন্তত দশটি গ্রামে অভিযান পরিচালনা করে নিষিদ্ধ অন্তত পঞ্চাশটি চায়না জাল উদ্ধার করে। পরে চরভাঙ্গুড়া গুমানি নদীর ঘাটে এসব জাল পোড়ানো হয়। এদিকে অভিযান পরিচালনা করার সময় জালের মালিকদের সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহীদ হাসান খান বলেন, চলনবিল অঞ্চলের নদী-নালা ও খাল-বিল মৎস্য সম্পদ বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। তাই এই সম্পদ রক্ষায় অসাধু মৎস্যজীবীদের প্রতিরোধে অভিযান পরিচালনা করা হয়।