প্রধান সূচি

পদ্ম ফুলে অপরূপ সাজে সেজেছে চাটমোহরের কলমিগাড়ার বিল

মোঃ নূরুল ইসলাম, চাটমোহর, পাবনা) ঃ
অপরূপ সাজে সেজেছে চাটমোহরের কলমিগাড়ার পদ্ম বিল। অনিন্দ্য সৌন্দর্যের কারণে পদ্মকে জলজ ফুলের রানি বলা হয়ে থাকে। এসব ফুল সাড়া ফেলেছে দর্শনার্থীদের মধ্যে। প্রতিদিনই কলমিগাড়া বিলে আসছে বিভিন্ন বয়সী দর্শনার্থীরা। বিল ঘুড়ে ঘুরে উপভোগ করছেন এমন অপরূপ সৌন্দর্য। এসব পদ্মফুলের দেখা মিলেছে পাবনা জেলার চাটমোহর উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নের কলমিগাড়ার পদ্ম বিলে।

অনেক বছর ধরে প্রাকৃতিকভাবে জন্ম নেয় এখানকার পদ্মফুল। ফুল দেখার উদ্দেশে চাটমোহর উপজেলাসহ আশেপাশের কয়েক উপজেলার মানুষ এ বিলে ঘুরতে আসেন। পদ্ম বিলের সৌন্দর্য উপভোগের পাশাপাশি কিছু সময়ের জন্য হারিয়ে যান প্রকৃতির মাঝে।

চাটমোহর উপজেলা শহর থেকে মূলগ্রাম ইউনিয়নের জগতলা ও শুইগ্রাম সড়কের কোল ঘেঁষে অবস্থিত কলমিগাড়ার বিল। চাটমোহর পৌর শহর থেকে মাত্র ৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এবিল। ইতোমধ্যে এ বিল পদ্মবিল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। বিলের অধিকাংশ জমিতেই প্রাকৃতিকভাবে পদ্মফুল জন্মে থাকে প্রতি বছরই। পুরো বিল গোলাপী আর সাদা রঙের পদ্মফুলে ভরে ওঠে। এযেন বিধাতার এক অপরূপ সৃষ্টি, যা দেখলে যে কারো মন জুড়িয়ে যায়।

পদ্ম বিলের সৌন্দর্য দেখার জন্য প্রতিদিনই বন্ধু-বান্ধব ও পরিবার পরিজন নিয়ে দর্শনার্থীরা এখানে আসেন। যে যার মতো করে বিলের সৌন্দর্য উপভোগ করেন আর ক্যামেরার ফ্রেমে বন্দি করে রাখেন। বাংলা বছরের আষাঢ় থেকে শুরু করে কার্তিক মাস পর্যন্ত কলমিগাড়ার পদ্ম বিলে ফুল থাকে।

পদ্ম বিলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে আসা পৌর সদরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আসাদুজ্জামন লেবু বলেন, প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে পরিবার-পরিজনের সঙ্গে কলমিগাড়ার এই পদ্ম বিল ঘুরতে আসি। এ বিলের সৌন্দর্য দেখার মতো। এখানে ঘুরতে আসলে মন ভালো হয়ে যায়।

পদ্মফুল বিক্রেতা স্থানীয় দুই শিশু রনি ও সাগর বলে, আমরা প্রতিদিন দুই তিনশ টাকার ফুল বিক্রি করি। এই ফুল ফুটলে আমাদের দিন ভালো যায়। আমাদের স্কুলের খাতা, কলম, জামাকাপড় কিনতে সুবিধা হয়।

পদ্ম বিল পাড়ের একজন বাসিন্দা মোঃ আবুবক্কার সিদ্দিক বলেন, বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ পদ্মবিলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে এখানে আসেন। রাস্তায় দাঁড়িয়ে থেকে উপভোগ করেন পদ্মবিলের অপরূপ সৌন্দর্য।