প্রধান সূচি

বড়াইগ্রাম পৌরসভা জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে জেলার শীর্ষে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নাটোর জেলায় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে বড়াইগ্রাম পৌরসভা শীর্ষস্থান দখল করেছে। চলতি বছরের আগষ্ট মাসের নিবন্ধন ফলাফল অনুযায়ী শীর্ষ নিবন্ধক প্রতিষ্ঠান হিসাবে স্থান করে নেয়ায় জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ মেয়র মাজেদুল বারী নয়নকে অভিনন্দন পত্র পাঠিয়েছেন। বৃহস্পতিবার তিনি এ অভিনন্দন পত্র দেন। পরে বিষয়টি রাতেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এতে জেলার শীর্ষস্থান অর্জন করায় পৌর বাসিন্দারা আনন্দ প্রকাশ করে মেয়রসহ পৌর পরিষদকে শুভেচ্ছা জানাতে দেখা গেছে।
এ ব্যাপারে পৌরসভার ভরতপুর গ্রামের ক্রীড়ানুরাগী সোহেল সরকার বলেন, জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন সরকারী একটি পরিসংখ্যান। এ কাজে সকল পৌরসভার মধ্যে বড়াইগ্রাম পৌরসভা প্রথম হয়েছে এটি পৌরবাসী হিসাবে আমাদের জন্য গর্বের ও আনন্দের। সামনের দিনগুলোতেও এ অর্জন ধরে রাখতে পৌরসভার সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আন্তরিক থাকবেন এটাই প্রত্যাশা।
পৌর নির্বাহী কর্মকর্তা জালাল উদ্দিন জানান, আমাদের সুযোগ্য মেয়র স্যারের দিক-নির্দেশনায় পৌর পরিষদ ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আন্তরিক প্রচেষ্টায় এ অর্জন সম্ভব হয়েছে। আগামীতেও এ অর্জন ধরে রাখতে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাবো ইনশাল্লাহ।
বড়াইগ্রাম পৌর মেয়র মাজেদুল বারী নয়ন বলেন, নাগরিকরাই পৌরসভার প্রাণ। তারা সবাই সচেতনভাবে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে সহযোগিতা করেছেন বলেই আমরা প্রথম হওয়ার গৌরব অর্জন করেছি। এ অর্জন পৌরসভার বাসিন্দাদের সবার। একই সঙ্গে আমি পৌরসভার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই, কারণ তাদের অক্লান্ত পরিশ্রম এ অর্জনে আমাদের সহায়তা করেছে। আগামীতেও একটি সুন্দর ও মডেল পৌরসভা গড়ার লক্ষ্যে সবার সহযোগিতা পাবো এটাই প্রত্যাশা।
উল্লেখ্য, মাজেদুল বারী নয়ন মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পরই জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধনে নাগরিকদের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টিসহ ০-৪৫ দিনের মধ্যে জন্ম শিশুর জন্ম নিবন্ধন করালেই উপহার প্রদানের পদ্ধতি চালু করেন। এরপর থেকে পৌর এলাকায় শিশুর জন্ম নিবন্ধনে ব্যাপক সাড়া পড়ে।