প্রধান সূচি

সারের ডিলার ও মৎস্য ব্যবসায়ীকে জরিমানা

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি
পাবনার ভাঙ্গুড়ায় চিংড়ি মাছে নিষিদ্ধ জেলি ব্যবহার করার অপরাধে আলী আকবর ও মোহাম্মদ আনিছ নামে দুই মাছ ব্যবসায়ীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। বৃহস্পতিবার সকালে শহরের ভাঙ্গুড়া মাছ বাজারে এই অভিযান চালায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাহিদ হাসান খান। এর আগে বুধবার রাতে বিসিআইসি ডিলার রেজ্জাকুল হায়দারকে দশ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। সারের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করতে নিয়ম বহির্ভূতভাবে নোংরা পরিবেশে বরাদ্দের বেশি ইউরিয়া সার গুদামজাত করায় এই জরিমানা করা হয়। রেজ্জাকুল হায়দার ভাঙ্গুড়া বাজারের বাসিন্দা।

সূত্র জানায়, বাজারের মাছ ব্যবসায়ী আলী আকবর ও মোহাম্মদ আনিছ চিংড়িসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ বিক্রি করে। তারা চিংড়ির ওজন বৃদ্ধি করতে নিষিদ্ধ জেলি ব্যবহার করে। উপজেলা প্রশাসন বিষয়টি জানতে পেরে অভিযান পরিচালনা করে তাদের ৫০০০ টাকা করে জরিমানা করে। অভিযান পরিচালনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে মৎস্য কর্মকর্তা ও পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে সার ব্যবসায়ী রেজ্জাকুল হায়দার ভাঙ্গুড়া পৌর শহর থেকে প্রায় তিন কিলোমিটার দূরে মন্ডুতোষ ইউনিয়নের বোয়ালমারী গ্রামে একটি বাড়িতে পরিত্যক্ত নোংরা ঘরে শতাধিক বস্তা ইউরিয়া সার মজুদ করে। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদ হাসান খান ওই বাড়িতে সরজমিনে গিয়ে নোংরা পরিবেশ ও বরাদ্দের চেয়ে অতিরিক্ত সার মজুদ করার অপরাধে রেজ্জাকুল হায়দারকে দশ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এ সময় ভবিষ্যতে রেজ্জাকুল হায়দার এমন কর্মকান্ড করবেন না বলে নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে মুচলেকা দেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদ হাসান খান বলেন, ভোক্তাদের সর্বোচ্চ সুবিধা নিশ্চিত করতে উপজেলা প্রশাসন সর্বদা বাজার মনিটারিং করছে। এরই অংশ হিসেবে ওই ব্যবসায়ীদের জরিমানা করা হয়।